kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীর চুল কাটলেন মাদকসেবী

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৩ জুলাই, ২০২০ ১৭:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীর চুল কাটলেন মাদকসেবী

বগুড়ার নন্দীগ্রামে জমি বিক্রি করে বাপের বাড়ি থেকে যৌতুক এনে দিতে রাজি না হওয়ায় মারপিটের পর স্ত্রী সাথী খাতুনের (১৯) মাথার চুল কেটে দিয়েছেন স্বামী রনি সরকার। সোমবার দুপুরে গৃহবধূর মা সবুরন বেওয়া বাদী হয়ে নন্দীগ্রাম থানায় তিনজনের নামে অভিযোগ করেছেন। নন্দীগ্রাম থানা ওসি মোহাম্মদ শওকত কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, রনি সরকার বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার হাটলাল গ্রামের আবদুল হাকিমের ছেলে। তিনি ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালান। প্রায় ৭ মাস আগে পার্শ্ববর্তী নাটোরের সিংড়া উপজেলার দমদমা গ্রামের মৃত আবদুর রহিমের মেয়ে সাথী খাতুনকে বিয়ে করেন। সাথীর বড় ভাই সবুজ হোসেন জানান, বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে নগদ ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছিল। কিছুদিন যাওয়ার পর রনি বাপের বাড়ি থেকে জমি বিক্রি করে আরো টাকা আনতে বলেন। রাজি না হওয়ায় তিনি সাথীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিলেন। গত ৩-৪ দিন ধরে সাথী শারীরিক ভাবে অসুস্থ। অনুরোধ করার পরও রনি তাকে ওষুধ এনে দেননি। খবর পেয়ে মেয়ে মা সবুরন বেওয়া ছুটে আসেন মেয়ের বাড়িতে। গত শনিবার বিকালে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যেতে বললে রনি ক্ষিপ্ত হয়ে মায়ের সামনে সাথীকে মারপিট করেন। বাধা দিলে শাশুড়িকেও মারধর করা হয়। এরপর রনি সাথীকে বাড়ি থেকে বের করে দেন।

নির্যাতনের শিকার সাথী খাতুন জানান, স্বামী রনি সরকার এর আগেও বিয়ে করেছিল। সে স্ত্রীকে তালাক দিয়ে তাকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। মাদকসেবী রনি বিয়ের পর থেকে তার ওপর নানাভাবে নির্যাতন করে আসছিল। সম্প্রতি সাবেক স্ত্রীর সঙ্গেও যোগাযোগ শুরু করে। বাপের বাড়ি থেকে জমি বিক্রি করে টাকা এনে না দেওয়ায় তাকে মারপিটের পর চুল কেটে দেয়। এক কাপড়ে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিলে বাপের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। বাপের বাড়িতে আশ্রয় নেওয়ার পর তাকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গত সোমবার গৃহবধূর মা সবুরন বেওয়া বাদী হয়ে থানায় জামাই ও মেয়ের শ্বশুর-শাশুড়ির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা