kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

হোটেল কক্ষে আটকে চার বন্ধু নিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণ!

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৯ জুলাই, ২০২০ ১৮:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হোটেল কক্ষে আটকে চার বন্ধু নিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণ!

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ চারজনকে আটক করে আজ বৃহস্পতিবার সুনামগঞ্জ জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

আটককৃতরা হলেন- উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৫), হাসিনাবাদ এলাকার পাখি মিয়ার ছেলে ছানা মিয়া (২৬), নেত্রকোনা জেলার (বর্তমান ঠিকানা ইকড়ছই) মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে অনিক মিয়া (১৯) এবং বড় মোহাম্মদপুর গ্রামের আব্দুল মানিকের ছেলে সুহেল মিয়া (২৪)।

অভিযোগপত্র ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জগন্নাথপুর পৌরসভার হাসিনাবাদ এলাকায় ১৮ বছরের এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলেন উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন। একপর্যায়ে প্রেমের ফাঁদে পেলে গত রবিবার (৫ জুলাই) রাতে ওই তরুণীকে তাঁর বাড়ি থেকে বের করে এনে আনোয়ার হোসেন উপজেলা সদরের জগন্নাথপুর বাজারের একটি আবাসিক হোটেলে উঠেন। মেয়েটিকে হোটেলের একটি কক্ষে আটকে রেখে রাতভর আনোয়ার মিয়াসহ তাঁর চার বন্ধু মিলে ধর্ষণ করেন। তিনদিন হোটেলের কক্ষেবন্দি থাকার পর গতকাল বুধবার সকালের দিকে মেয়েটি কৌশলে হোটেল কক্ষ থেকে বের হয়ে বাড়িতে চলে যায়।

এ বিষয়ে গতকাল বুধবার বিকেলে ওই তরুণী বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে চারজনকে আটক করে। তবে অপর অভিযুক্ত হাসিনাবাদ এলাকার ছনর মিয়ার ছেলে সেলন মিয়া (২০) এখনও পলাতক।

জগন্নাথপুর থানার উপপরির্দশক (এসআই) অনিক দেব বলেন, তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে চারজনকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আর ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সুনামগঞ্জের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা