kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

সিরাজগঞ্জে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪০

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি    

৭ জুলাই, ২০২০ ২২:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সিরাজগঞ্জে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪০

সিরাজগঞ্জে দলীয় কোন্দলে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জেলা ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক বিজয়ের রুহের মাগফিরাত কামনায় আয়োজিত দোয়া মাহফিলকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে অন্তত ৪০ জন। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ব্যাপক লাঠিপেটা করে এবং কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে তা শহরের প্রধান সড়কে ছড়িয়ে পড়ে। সড়কটি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। উভয় পক্ষের ধাওয়াধাওয়ি ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের কারণে শহরের দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

দলীয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত জেলা ছাত্রলীগের সহসাধারণ সম্পাদক এবং জামতৈল হাজী করোপ আলী কলেজ ছাত্রসংসদের ভিপি এনামুল হক বিজয়ের রুহের মাগফিরাত কামনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শেষ দিন গতকাল বিকেলে ছিল দোয়া মাহফিল। দলীয় কার্যালয়ে মাহফিলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ বিন আহমাদসহ ছাত্রলীগের একাংশ এবং জেলা আওয়ামী লীগের বেশ কিছু জ্যেষ্ঠ নেতাকর্মী এতে অংশ নেন।

বিকেল ৫টার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবীব খোকার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের একটি অংশ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দলীয় কার্যালয়ের সামনে গেলে উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয় এবং একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সিরাজগঞ্জ সদর আসনের সংসদ সদস্য হাবিবে মিলস্নাত মাহফিলে অংশ নেওয়ার কথা থাকলেও পরিস্থিতির কারণে তিনি তা বাতিল করে দেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস জানান, বাইরে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মীর মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও সংঘর্ষ শুরু হলে মাহফিল সংক্ষিপ্ত করে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়। 

জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু ইউসুফ সূর্য্য সরাসরি অভিযোগ করে বলেন, হাবিবে মিলস্নাতের নেতৃত্বে একটি পক্ষ পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালায়।
 
তবে হাবিবে মিলস্নাত বলেন, ‘এ সংঘর্ষের সাথে আমার কোনভাবেই সম্পৃক্ততা নেই। একটি পক্ষ বিশেষ উদ্দেশ্যে আমাকে নিয়ে এই অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।’ তিনি জানান, বিকেলে ছাত্রলীগ সভাপতি আহসান হাবীবের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে গেলে উপস্থিত ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মীর বাধার মুখে পড়ে। এ সময় তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডা এবং একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। 

সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) ফোরকান সিকদার জানান, আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে শুরু হয়। সংঘর্ষ পুলিশ নিয়ন্ত্রণ করলেও শহরে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সিরাজগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন এক বিবৃতিতে ‘ছাত্রলীগের একাংশের এ ধরনের উচ্ছৃঙ্খল আচরণের’ নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা