kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

মাদক কারবারির কলেজের জমি দখলের ঘটনায় তোলপাড়

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

৭ জুলাই, ২০২০ ১৭:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাদক কারবারির কলেজের জমি দখলের ঘটনায় তোলপাড়

রাতের আঁধারে কক্সবাজার সরকারি কলেজের জমি অবৈধভাবে দখল করে আলোড়ন তুলেছেন এক চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি। একজন ইয়াবা কারবারি কর্তৃক দক্ষিণ চট্টগ্রামের একটি শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠের জমি দখলসহ অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের ঘটনায় গত তিন দিন ধরে পুরো এলাকা ফুঁসে উঠেছে। শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ কলেজের শিক্ষকদের উপস্থিতিতে কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরাই ইয়াবা কারবারির স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়। তবে এ পর্যন্ত কলেজের জমি দখলকারী ওই ব্যক্তি ও সাঙ্গপাঙ্গরা গ্রেপ্তার হয়নি।

কক্সবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক অধ্যাপক মুফিদুল আলম বলেন, কলেজের প্রবেশদ্বারের পশ্চিমপার্শ্বের জমিতে সরওয়ার আলম নামের স্থানীয় এক বিতর্কিত ব্যক্তি অবৈধভাবে মাটি ফেলে স্থাপনা নির্মাণ করে। কলেজের জমিতে এই স্থাপনা কেন তৈরি করেছে এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে ওই ব্যক্তিকে বার বার ডেকে পাঠানো হয়। কিন্তু তিনি বিষয়টি কর্ণপাত করেননি এবং কলেজ প্রশাসনের সাথে কথা বলতেও অস্বীকৃতি জানান। তিনি জানান, উল্টো ওই বিতর্কিত ব্যক্তি কলেজ কর্তপক্ষকে হুমকি প্রদর্শন করে বলেছেন, তিনি এখানকার কলেজেটি বন্ধ করে দেওয়ার শক্তি রাখেন। ইয়াবা কারবারির হুমকির মুখে গত ৩ দিন ধরে কেউ উচ্ছেদেরও সাহস পায়নি।

পরে কলেজ কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করে। কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন জানান, কলেজ কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশও বার বার ডেকে পাঠিয়েছে দখলকারী ব্যক্তির বক্তব্য জানার জন্য। কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান কবির জানান, কক্সবাজার সরকারি কলেজটির পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দা সরোয়ার আলম গাঢাকা দেওয়া একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। তার বিরুদ্ধে ইয়াবা কারবারের অভিযোগ রয়েছে। তিনি কক্সবাজার জেলার বৃহত্তর একটি সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জমি জবরদখল করে মানুষের ঘৃণার পাত্র হয়েছেন। এ কারণে পুলিশের হাতে আটক হবার ভয়ে গাঢাকা দিয়েছেন।

কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক অধ্যাপক মুফিদুল আলম আরো জানান, শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ কলেজ প্রশাসনের সহযোগিতায় কলেজের শিক্ষার্থীরা কলেজের জমিতে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনাটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, স্থাপনাটি গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর বুধবারের মধ্যে সরঞ্জামাদি ওই স্থান থেকে সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে দখলকারীকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা