kalerkantho

সোমবার  । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ৩ আগস্ট  ২০২০। ১২ জিলহজ ১৪৪১

'লাশ বাড়ি নেওয়া সম্ভব না' বলে পালাল করোনা রোগীদের স্বজনরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

৫ জুলাই, ২০২০ ১৮:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'লাশ বাড়ি নেওয়া সম্ভব না' বলে পালাল করোনা রোগীদের স্বজনরা

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার পর রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে লাশ রেখেই পালিয়েছেন তাঁর স্বজনরা। রবিবার দাফনের জন্য মৃতদের স্বজনদের খোঁজাখুঁজি করেও পায়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরে তাদের খোঁজার জন্য পুলিশকে জানানো হয়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতরা হলেন, নওগাঁ জেলার পত্নীতলা উপজেলার জামগ্রামের আজাদ আলী এবং রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার মোয়াজ আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন আজাদ আলী ও হাবিবুর রহমান। নমুনা পরীক্ষায় তাদের করোনা পজিটিভ আসে। আজাদ আলী হাসপাতালের আইসিইউতে এবং হাবিবুর রহমানকে ২৯ নম্বর (করোনা ওয়ার্ড) ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। গতকাল শনিবার রাত দেড়টার দিকে আজাদ আলী এবং ভোররাতে হাবিবুর রহমান মারা যান। আজাদ আলীর স্বজনরা 'লাশ গ্রামের বাড়ি নেওয়া সম্ভব না' বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানান। মৃতের স্বজনরা লাশ দুটি রাজশাহীতেই দাফনের জন্য অনুরোধ করেন। পরে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা রাজশাহীতে সেই লাশ দাফনের ব্যবস্থা করে। প্রয়োজনীয় কাজ শেষে স্বেচ্ছাসেবীরা হাসপাতালে এসে মৃতের স্বজনদের খুঁজে না পেয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানান। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর স্বজনদের ফোন করে নম্বরটি বন্ধ পায়।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রোগীর সঙ্গে হাসপাতালে তাঁদের স্বজনরা ছিলেন। রোগী দুজন মারা যাওয়ার পর থেকে তাঁদের নম্বর বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। ঘটনাটি স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা