kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

বেনাপোল সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে মাদক চোরাচালানি নিহত

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি   

৩ জুলাই, ২০২০ ১৫:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেনাপোল সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে মাদক চোরাচালানি নিহত

যশোরের বেনাপোল সীমান্তের বাহাদুরপুর মাঠ থেকে বিএসএফের গুলিতে নিহত রিয়াজুল ইসলাম রিয়া মোড়ল (২৬) নামে এক মাদক চোরাচালানির গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৩ জুলাই) দুপুর ১২টায় পোর্ট থানা পুলিশ ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) বাঁশঘাটা ক্যাম্পের সামনে থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত রিয়া বেনাপোল পোর্ট থানার বাহাদুরপুর গ্রামের কাঠু মোড়লের ছেলে। এ সময় মরদেহের পাশ থেকে ৬ কেজি গাঁজাও উদ্ধার করা হয়। 

যশোর বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর নজরুল ইসলাম ও বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি মামুন খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, রিয়া একজন চিহ্নিত মাদক চোরাচালানি। সে দীর্ঘদিন ধরে ভারত থেকে চোরাই পথে মাদক নিয়ে আসছে। বিজিবির টহলদলের চোখ ফাঁকি দিয়ে সে প্রায় রাতে গাঁজা আনতে ভারতে যায়। রিয়ার বাবা কাঠু মোড়ল বলেন, আমরা তাকে অনেকবার নিষেধ করেছি। সে নিষেধ শোনে না। সে গাঁজার মহাজনের একজন বহনকারী হিসাবে এ কাজ করে। 

বিজিবি জানায়, রাত সাড়ে ৩টার সময় বিএসএফ তাকে গুলি করে হত্যা করে। টহলদলের গুলির শব্দে বাহাদুরপুর সীমান্তের ২৬-থ্রি-টি মেইন পিলার থেকে ১৪০ গজ দূরে গিয়ে দেখা যায় বুকে গুলিবিব্ধ এক যুবকের মরদেহ পড়ে রয়েছে। পরে তার পরিচয় নিশ্চিত করা হয়।

যশোর ৪৯ বর্ডার গার্ড অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভারতের বাঁশঘাটা সীমান্তের বিপরীতে বেনাপোলের বাহাদুরপুর মাঠে টহলের সময় এক গুলিবিদ্ধ মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয় ধান্যখোলা বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার সরোয়ার হোসেন। পরে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। নিহত যুবক এলাকার চিহ্নিত মাদক চোরাচালানি।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, সীমান্তে ২৬ মেইন পিলার হতে ৩টি পিলারের পাশে কাঁটাতারের বেড়ার কাছে একটি মরদেহ পড়ে আছে। বিজিবি ও স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। উদ্ধার লাশের গায়ে গুলির চিহ্ন আছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৬ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। নিহত রিয়া মোড়ল একজন মাদক কারবারি। তার নামে বেনাপোল পোর্ট থানায় ৩টি মাদক মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা