kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

বরিশালে করোনা ইউনিটে ১৩ ঘণ্টায় চারজনের মৃত্যু

বরিশাল অফিস   

৩ জুলাই, ২০২০ ০৮:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরিশালে করোনা ইউনিটে ১৩ ঘণ্টায় চারজনের মৃত্যু

বরিশালের শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে করোনা উপসর্গ নিয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে রাত সাড়ে ৯টার মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়। রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন।

গতকাল মৃতরা হলেন, বরিশাল বিমানবন্দর থানা এলাকার রাম চরনের ছেলে বিমল চরন (৬০), পটুয়াথালী সদর উপজেলার কালিকাপুড় এলাকার মোঃ মোশারেফ হোসেনের স্ত্রী সালেহা বেগম (৫৫), পিরোজপুর জেলার ভান্ডারীয়া উপজেলার গাজীপুর এলাকার হরেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের ছেলে জিতেনন্দ্র নাথ বিশ্বাস (৭০) এবং বাবুগঞ্জ উপজেলার ইছলাদী এলাকা্র আব্দুল শফিজ উদ্দিনের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৫০)।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ১৩জুন শনিবার সকালে করোনা করোনা উপসর্গ নিয়ে বিমাল চরন হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ভর্তি হন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টায় আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এর আগে নমুনা পরীক্ষা রির্পোটে তার শরীরে করোনা নেগেটিভ আসে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় করোনা উপসর্গ নিয়ে করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছিলো সালেহা বেগমকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায় তিনি মারা যান। মৃত্যুর পরে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

সন্ধ্যা ৭টায় করোনা উপসর্গ নিয়ে জিতেন্দ্রনাথ বিশ্বাসকে করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছিলো। ভর্তি সাথে সাথে তিনি মারা যান। মৃত্যুর পরে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার বিকেল চারটায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি করা হয় আবুল কালাম আজাদকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় তিনি মারা যান। তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন বলেন, মৃত চারজনের মধ্যে বিমল চরনের পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী তিনি করোনা আক্রন্ত ছিলেন না। বাকী তিনজন করোনা আক্রান্ত কিনা তা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না। এই চারজন নিয়ে করোনা ইউনিটে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৪ জনে। এদের মধ্যে করোনা পজেটিভ ছিলেন ৩৭ জন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা