kalerkantho

শনিবার । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৫ আগস্ট ২০২০ । ২৪ জিলহজ ১৪৪১

স্ত্রীকে হত্যার পর সন্তান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি    

৩ জুলাই, ২০২০ ০১:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্ত্রীকে হত্যার পর সন্তান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গৃহবধূ হ্যাপি আক্তারকে (২২) হত্যার পর শিশুসন্তান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পৌর শহরের চার নম্বর ওয়ার্ডের জন্মেজয় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হ্যাপি একই এলাকার কাজিমুদ্দিনের মেয়ে। পাঁচ বছর আগে বাড়ি থেকে তিনি মুজাহিদের সঙ্গে পালিয়েছিলেন। পরে তাঁরা বিয়ে করেন। মুজাহিদ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চালক। তাঁদের দুই বছর ও তিন মাস বয়সী দুটি ছেলে আছে।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সালটিয়া ইউনিয়নের খাইরুল ইসলামের ছেলে মুজাহিদ পরিবার নিয়ে শ্বশুরবাড়ির পাশে ভাড়া থাকেন। বিয়ের পর থেকেই মুজাহিদ যৌতুকের দাবিতে হ্যাপিকে মারধর করতেন।

হ্যাপির পরিবারের দাবি, তারা সাধ্যমতো মাঝেমধ্যে টাকা দিয়ে সহযোগিতাও করত। গতকাল সন্ধ্যায় মুজাহিদ-হ্যাপির বড় ছেলে জাহিদ নানুর বাড়িতে ছিল। তখন হ্যাপিকে মারধরে হত্যা করে ছোট ছেলেকে নিয়ে মুজাহিদ পালিয়ে যান বলে হ্যাপির পরিবারের অভিযোগ। 

নিহতের ভাই শারফুল ইসলাম বলেন, ‘মুজাহিদ প্রায়ই আমার বোনকে টাকার জন্য মারধর করত। আমরা সাধ্য অনুযায়ী বহুবার টাকা দিয়েছি। আমরা এর সঠিক বিচার চাই।’

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গফরগাঁও সার্কেল) আলী হায়দার চৌধুরী বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ও লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা