kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশক ছিলেন মফিজুল

করোনা উপসর্গে একই দিনে মারা গেলেন মা ও ছেলে

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

২ জুলাই, ২০২০ ২০:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা উপসর্গে একই দিনে মারা গেলেন মা ও ছেলে

চাঁদপুরে করোনার উপসর্গ নিয়ে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশক ও তাঁর মায়ের মৃত্যু হয়েছে। ১০ ঘণ্টা ব্যবধানে এই মা ও ছেলে মারা গেছেন। জেলার হাইমচরে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মারা যান মা এবং তাঁর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় মারা যান ছেলে।

তাঁরা হচ্ছেন হাইমচরের উত্তর আলগী গ্রামের বৃদ্ধা সুফিয়া বেগম (৬৫) এবং তাঁর ছেলে মফিজুর রহমান মিয়াজী। সর্দিজ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে অসুস্থ হয়ে বেশ কয়েক দিন আগে মফিজুর রহমান মিয়াজীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। তবে সেই নমুনার রিপোর্ট আসার কয়েক ঘণ্টা পরই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

হাইমচর আলগী বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম কোতোয়াল জানান, বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের স্থানীয় পরিবেশক ছিলেন মফিজুর রহমান মিয়াজী (৪৫)। গত কয়েক দিন ধরে সর্দিজ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন মফিজুর রহমান মিয়াজী। এর মধ্যে তার নমুনাও পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার সকালে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নেওয়ার মধ্যেই মারা যান তিনি। সন্ধ্যায় একই উপসর্গ নিয়ে মারা যান তাঁর মা সুফিয়া বেগম।

এদিকে তাদের দুজনকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বেলায়েত হোসেন। 

হাইমচর প্রেস ক্লাবের সভাপতি খুরশিদ আলম সিকদার জানান, সেখানে দ্রুতগতিতে করোনার বিস্তার ঘটছে। এর মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীসহ অসংখ্য মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। তা ছাড়া একাধিক মৃত্যুর ঘটনাও ঘটে চলেছ। বিষয়টি বেশ উদ্বেগজনক বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৭১ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৬০ জন। আর উপসর্গ নিয়ে মারা যান আরো ৮৫ জন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা