kalerkantho

শুক্রবার। ২৬ আষাঢ় ১৪২৭। ১০ জুলাই ২০২০। ১৮ জিলকদ ১৪৪১

যুবলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষ, প্রাণ গেল আহত পথচারীর

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

৩০ জুন, ২০২০ ১১:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুবলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষ, প্রাণ গেল আহত পথচারীর

প্রভাববিস্তার আর মাদক নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের পুরানবাজারে যুবলীগের দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সোমবার রাতে মধ্য শ্রীরামদী এবং পাশের মেরকাটিজ সড়কে এই সংঘর্ষ হয়। এসময় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র এবং কাঁচের বোতল ব্যবহার করে। এতে অনন্ত ১০ জন আহত হন। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুই দফায় চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এসময় ঘটনাস্থল দিয়ে বাসায় যাবার পথে শামীম গাজী (২৫) নামে এক পথচারী গুরুতর আহত হন। আজ মঙ্গলবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। 

নিহত শামীম গাজী চাঁদপুর শহরে গ্র্যান্ড হিলশা নামে একটি আবাসিক হোটেলের কর্মচারি ছিলেন।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানিয়েছে, ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল ইসলামের সঙ্গে পাশের ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত পাটোয়ারীর ছেলে রাসেল পাটোয়ারীর সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। পুরানবাজারের মধ্য শ্ররামদী এবং মেরকাটিজ সড়ক এলাকায় এক ঘণ্টাব্যাপী এই সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র এবং কাঁচের বোতল ব্যবহার করে। এসময় বেশ কয়েকটি দোকানও ভাঙচুর করা হয়। 

সংঘর্ষের সংবাদ পেয়ে প্রথমে পুরানবাজার পুলিশ ফাঁড়ি থেকে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয় পক্ষকে সংঘর্ষ থামাতে ব্যর্থ হয়। পরে সদর মডেল থানার ওসি মো. নাসিমউদ্দিনের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় লাঠিচার্জ এবং শর্টগানের কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়তে হয়।

রাত ১২টায় ওসি মো. নাসিমউদ্দিন জানান, পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। তবে জড়িত কাউকে আটক করা যায়নি। পুলিশ ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টা করছে বলেও জানান ওসি।    

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মূলত প্রভাববিস্তার এবং মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় যুবলীগের কতিপয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে এই নিয়ে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

তবে ঘটনার পর থেকে ফের সংঘর্ষের আশঙ্কায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।      

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা