kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

ইয়াবা ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় যুবককে পিটিয়ে জখম

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৪ জুন, ২০২০ ০৪:০৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইয়াবা ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় যুবককে পিটিয়ে জখম

কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা ইউনিয়নের চৌধুরীপাড়া এলাকায় লাবিব (৩৭) নামে এক যুবকের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। লাবিব চৌধুরীপাড়া এলাকায় থেকে ইউনিলিভার কম্পানির ডিএইচ আর এস এর পদে চাকরি করেন। এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার জন্য লাবীব তার সহকর্মী রানাসহ কয়েকজনকে অভিযুক্ত করেন। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লাবিব অভিযোগ করে বলেন, ‌'আমি ইউনিলিভার কম্পানিতে ছয় মাস ধরে ৯ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করে আসছিলাম। তখন আমার দায়িত্ব ছিল চৌধুরীপাড়া এলাকায়। সেখানে চাকরি করা অবস্থায় সহকর্মী রানার সঙ্গে আমার ভালো সখ্য হয়।

সহকর্মী রানা দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত আয়ের লোভ দেখিয়ে আমাকে মাদক বিক্রি করার প্রস্তাব দিয়ে আসছে। রানা বলেন, মাদক বিক্রি করলে তোর কেউ কোনো ক্ষতি করতে পারবে না। কারণ বড় ভাই মুরাদ মেম্বার আমাদের সঙ্গে আছে।

থানা পুলিশ মুরাদ ভাই সামলাতে পারবে। আমি রানার প্রস্তাবে রাজি হইনি। তাই একদল সন্ত্রাসী নিয়ে রানা শুভাঢ্যা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মুরাদ মেম্বারের কথা বলে লাঠিসোঁটা দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি সারা শরীরে আঘাত করলে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি।'

পরে আহত লাবিবের বাবা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য নাসির বলেন, 'লাবিবকে অনেক দিন ধরে বিপদে ফেলার জন্য রানা চেষ্টা চালিয়েছে বিষয়টি আমি জানতাম। আমার ছেলে মাদক কারবার করতে রাজি না হওয়ায় রানা একদল সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে পিটিয়ে আহত করে অজ্ঞান অবস্থায় রুমের ভেতর ফেলে যায়।

লোকমুখে খবর পেয়ে আমরা লাবিবকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করি। পরে চিকিৎসার জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করি। লাবিবের শারীরিক অবস্থা ভালো না। তার মাথায় প্রচুর আঘাতের ফলে লাবিব কথাবার্তা অসংযত ও কাউকে সে ভালো করে চিনতে পারছে না। আমি একজন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য হিসেবে দেশের প্রচলিত আইনে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ ব্যাপারে মুরাদ মেম্বারের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। একটি স্বার্থান্বেষী মহল আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ও সামাজিক অবস্থান হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য অপপ্রচার করছে। রানা আর লাবিব আমার এলাকার বাসিন্দা হতে পারে; কিন্তু আমি তাদের চিনি না।
 
দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এসআই সাক্রাতুল ইসলাম জানান, লাবিব বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার তদন্ত চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা