kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩০ আষাঢ় ১৪২৭। ১৪ জুলাই ২০২০। ২২ জিলকদ ১৪৪১

কিশোরগঞ্জে নতুন আরো ৫৪ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ৫৫৭

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

৬ জুন, ২০২০ ০৯:২৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কিশোরগঞ্জে নতুন আরো ৫৪ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ৫৫৭

কিশোরগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। গত তিন দিনে জেলায় নতুন করে ১৫৩ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাদের নিয়ে জেলায় করোনায়  আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫৭ জনে। সর্বশেষ গতকাল শুক্রবার রাত ১২টার দিকে সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো ৫৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে জানানো হয়।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানান, ৫ জুন ৫৪ জন, ৪জুন ৪৭ জন ও ৩ জুন ৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরিস্থিতি বিবেচনায় বর্তমানে মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ ও কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে জেলার নমুনাগুলো পরীক্ষা করা হচ্ছে। আগে শুধু ঢাকায় পাঠানো হতো নমুনা। কিশোরগঞ্জের ল্যাবটি চালু হওয়ায় পরীক্ষা বেশি হচ্ছে। একইসঙ্গে শনাক্তও বাড়ছে।

৫ জুন শনাক্ত হওয়া ৫৪ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদরে ১৭ জন, করিমগঞ্জে ৩ জন, পাকুন্দিয়ায় ৩ জন, কটিয়াদীতে ৫ জন, কুলিয়ারচরে ৩ জন, ভৈরবে ১৭ জন, বাজিতপুরে ৫ জন ও অষ্টগ্রামে ১ জন রয়েছেন। 
সিভিল সার্জন জানিয়েছেন, গত ৩১ মে ও ৩ জুন জেলায় মোট ৪০৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে আজ ২৬১ জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে ৫৪ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। বাকি নমুনাগুলোর ফলাফল এখনও পাওয়া যায়নি।

করোনা আক্রান্তের দিক থেকে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় রয়েছে ভৈরব উপজেলা, সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২০০। কিশোরগঞ্জ সদরে আক্রান্ত হয়েছে ৮২ জন, তাড়াইলে ৫০ জন, বাজিতপুরে ৩৭ জন, করিমগঞ্জে ৪৪ জন, মিঠামইনে ২৫ জন, কটিয়াদীতে ২৪ জন, পাকুন্দিয়ায় ২৯ জন, কুলিয়ারচরে ২২ জন, হোসেনপুরে ১৩ জন, ইটনায় ১৭ জন, নিকলীতে ১০ জন ও অষ্টগ্রামে ৪ জন।

এ পর্যন্ত জেলায় মোট ছয় হাজার তিনশ ৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সবচেয়ে বেশি কিশোরগঞ্জ সদরে ১৪২৮জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর ভৈরবের নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ১৩৪৭। সবচেয়ে কম ১০৫জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে অষ্টগ্রামে। ইটনায় ১৪৫, করিমগঞ্জে ২৫৭, নিকলীতে ২২৪, মিঠামইনে ২৫৯, কুলিয়ারচরে ২৭৯, বাজিতপুরে ৩৩৮, পাকুন্দিয়ায় ৩৭২, হোসেনপুরে ৩৮২, কটিয়াদীতে ৪৭১ ও তাড়াইলে ৭৬২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ১৪জন মারা গেছেন। গত ২৪ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন তিনজন। তাঁদের নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ২১৯জন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা