kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

কেরানীগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে দু'পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৩

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

৪ জুন, ২০২০ ০২:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কেরানীগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে দু'পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৩

কেরানীগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দু'পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১৩ জন আহত হয়েছে, যাদের মধ্যে তিনজন গুলিবিদ্ধ ও একজনের অবস্থা আশংকাজনক।

গতকাল বুধবার সকালে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন বাঘাপুর ভাওয়ারভিটি এলাকায় ঢাকা মাওয়া মহাসড়কের পাশে সামছু ফিলিং স্টেশনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক উদ্ধারপূর্বক ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশিদকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ওই ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশিদ ও পার্শ্ববর্তী জালাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মালিক মো. জালালের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে গতকাল সকালে দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

সংঘর্ষের এক পর্যায়ে সামসু ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশিদ পুলিশের উপস্থিতিতে বন্দুক দিয়ে কয়েক রাউন্ড গুলি করে। এতে জালাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কর্মচারী আকিব হোসেন (১৮), রাজমিস্ত্রি কুদ্দুস (৭০) ও কর্মচারী মো. আমিন (২০) গুলিবিদ্ধ হয়। 

এছাড়া আরো বেশ কয়েকজন আহত হয়। তবে আকিবের অবস্থা আশংকাজনক। তাকে রাজধানীর পান্থপথের ইউনিক হেলথ হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদিকে সংঘর্ষের একপর্যায়ে আহত হয় ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশিদ, ছেলে মেহেদি হাসান হিরন, মেয়ের জামাই অ্যাড. নুরুল আলম, ম্যানেজার মো. হাবিব, ইমরান ও শাহিন। আহতদের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

এছাড়া জালাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মালিক জালাল মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি মারামারি করতে ফালু মিয়াকে ভাড়া করেছেন। কে এই ফালু মিয়া এলাকাবাসীর প্রশ্ন?
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আশকর আলী বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে আমার পরিষদে মিমাংসা হয়েছিল। তবে ফিলিং স্টেশনের মালিক আমাদের মিমাংসা মানেনি। আজ সকালে দুপক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজামান বলেন, সামসু ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশিদের বন্দুকের গুলিতে জালাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের একটি ছেলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় আইসিওতে রয়েছে। ছেলেটি মারা যাওয়ার আশংকাই বেশি। তবে আমরা দোয়া করি ছেলেটি বেঁচে থাকুক। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ফিলিং স্টেশনের মালিক হারুন অর রশীদকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা