kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ আষাঢ় ১৪২৭। ৯ জুলাই ২০২০। ১৭ জিলকদ ১৪৪১

মেয়ের সাফল্য দেখে যেতে পারেননি সবুজ মাস্টার

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২ জুন, ২০২০ ১৮:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেয়ের সাফল্য দেখে যেতে পারেননি সবুজ মাস্টার

মেয়ের ভালো ফলাফলের প্রত্যাশায় দিনরাত পরিশ্রম করতেন শিক্ষক পিতা একেএম সাইফুল আলম সবুজ। কর্মস্থলের বাইরে পুরো সময়টা বরাদ্দ রেখেছিলেন মেয়ের জন্য। বাবার উৎসাহ ও সহযোগিতায় সাঈদা আফরিন অর্পিতা এবারের এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে। কিন্তু পিতা তার এ ফলাফল জানতে পারেননি। ব্রেইন স্ট্রোকে সাতদিন অচেতন থেকে মঙ্গলবার ভোরে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি।

স্বজনরা জানান, একেএম সাইফুল আলম সবুজ (৫৫) পাকুন্দিয়া উপজেলার জাঙালিয়া ইউনিয়নের মানুল্লারচর হাজীবাড়ির মরহুম আবদুস সামাদের বড় ছেলে। তিনি পাকুন্দিয়া পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার মেয়ে অর্পিতা এবছর স্কুলটি থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। সন্তানের জন্য সবুজ মাস্টারের পরিশ্রম এলাকার সকলেই অবগত। সে সূত্রে প্রকাশিত ফলাফলে অর্পিতা গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেলে আনন্দিত হন পরিচিত সকলেই। কিন্তু কন্যার এ সাফল্য জানতে পারেননি সবুজ মাস্টার।

সাইফুল আলম সবুজ গত ২৬মে ভোরে ব্রেইন স্ট্রোক করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে ঢাকার নিউরো সায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোর তিনি মারা যান। তার লাশ বিকেলে এলাকায় নেয়া হলে শোকের ছায়া নেমে আসে। প্রায় সকলের আলোচনায় ছিল কন্যার সাফল্য আর পিতার মৃত্যু নিয়ে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা