kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ আষাঢ় ১৪২৭। ৯ জুলাই ২০২০। ১৭ জিলকদ ১৪৪১

বরিশালে করোনা ওয়ার্ডে আরো তিনজনের মৃত্যু

বরিশাল অফিস   

২ জুন, ২০২০ ০৪:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরিশালে করোনা ওয়ার্ডে আরো তিনজনের মৃত্যু

বরিশালের বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে গতকাল সোমবার আরো তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যু ওই তিনজন করোনা ভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ  নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, মারা যাওয়া তিনজনের মধ্যে ৭৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ বরিবার সন্ধ্যা ৭টায় শ্বাসকষ্ট, জ্বর নিয়ে ভর্তি হন। অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাঁকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) পাঠানো হয়। গতকাল সোমবার বেলা ৩টা ২০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যান।  তাঁর বাড়ি বরিশাল নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দার কাজিপাড়া এলাকায়। 

মারা যাওয়া দ্বিতীয় জন ৫০ বয়স বয়স্ক ওই ব্যক্তি গতকাল বেলা ৩টা ২৫ মিনিটে করোনার উপসর্গ নিয়ে এই হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হন। ভর্তি হওয়ার ৫ মিনিটের মাথায় বেলা সাড়ে ৩টায় চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর বাড়ি পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলায়। 

মারা যাওয়া তৃতীয়জন গতকাল বেলা দেড়টার দিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হন। এক ঘণ্টা ৪০ মিনিটের মাথায় বেলা ৩টা ১০ মিনিটে তিনি মারা যান। তাঁর বাড়ি ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায়।

শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন বলেন,  ২০ মিনিটের মধ্যে তিনজন এবং একের পর এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় আমরাও উদ্বিগ্ন, আতঙ্কিত। মারা যাওয়াদের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

এছাড়া  প্রায় প্রতিদিনই হাসপতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও করোনায় সংক্রমিত হচ্ছেন। এভাবে চলতে থাকলে করোনা রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিতে আমাদের ভোগান্তিতে পরতে হবে। গতকাল রোববার সাড়ে চার ঘণ্টায় তিনজন এবং তার আগের দিন (শনিবার) ১২ ঘণ্টার কিছু বেশি সময়ের ব্যবধানে তিনজন মিলিয়ে গত তিন দিনে করোনা ওয়ার্ডে মারা গেলেন নয়জন।

গত ২৮ মার্চ থেকে সোমবার পযর্ন্ত করোনার উপসর্গ নিয়ে বরিশালে ৪৩ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে ৩৬ জন শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। এছাড়া করোনা শনাক্ত ১১ জন রোগী মারা গেছে। এর মধ্যে পটুয়াখালীতে চারজন, বরগুনা, ঝালকাঠিতে দুজন করে এবং বরিশাল, পিরোজপুর ভোলায় মারা যান একজন করে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা