kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ আষাঢ় ১৪২৭। ২ জুলাই ২০২০। ১০ জিলকদ  ১৪৪১

ভ্রমণপ্রেমী থেকে ‘স্প্রে আশিক’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

৩১ মে, ২০২০ ১২:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভ্রমণপ্রেমী থেকে ‘স্প্রে আশিক’

পুরো নাম মো. আশিকুল ইসলাম। ডাক নাম আশিক। ভ্রমণ অভিজ্ঞতার ঝুলিতে রয়েছে ৩০টিরও বেশি দেশের নাম। ভ্রমণপ্রেমী হিসেবেই এতদিন পরিচিতি ছিলো আশিকের। করোনাকালে এখন নাম পাল্টে ‘স্প্রে আশিক’। জীবানুনাশক ছিটিনোর ফলেই তাঁর এই বদলানো নাম। 

আশিকুল ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার মুন্সেফপাড়ার মো. হাবিব আলমের ছেলে। ২০১২ সালে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ সম্পন্ন করে আমদানি-রপ্তানি ব্যবসায় সম্পৃক্ত হন। গত ফেব্রুয়ারি মাসেই ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, গ্রিস, তুরস্ক, জর্ডান ভ্রমণ করেছেন। এ ছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, পেরু, বলিভিয়া, যুক্তরাজ্য, ভারত, ইতালি, সৌদি আরব, শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, চীন, কোরিয়া, জাপান, সুইজারল্যান্ড, ভ্যাটিক্যান সিটিসহ ৩০ টির বেশি দেশ ঘুরেছেন।

আশিকুল জানান,  গত ২৪ মার্চ ওই জীবাণুনাশক ছিটানোর যন্ত্র কিনেছেন। ওইদিন দুপুরে যন্ত্রটি নিয়ে তিনি নিজের ঘর, এলাকার বাড়িঘর ও রাস্তাঘাটে জীবাণুনাশক ছিটিয়েছেন। এরপর থেকে রাস্তাঘাটসহ কখনো মসজিদ, কখনো হাসপাতাল, ক্লিনিক, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে জীবাণুনাশক ছিটাচ্ছেন। বাদ যায় না রাস্তার রিকশা, ইজিবাইক, মোটরসাইকেলও। পানির সঙ্গে ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে কাঁধে ১৮ লিটারের জীবাণুনাশক যন্ত্র নিয়ে তিনি ঘুরে বেড়ান।

আশিকুল বলেন, ‘মানুষের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার চিন্তা থেকেই জীবাণুনাশক ছিটানোর উদ্যোগ গ্রহণ করি। আর মানুষকে সচেতন করাই আমার প্রধান লক্ষ্য। নাগরিক হিসেবে আমার দায়িত্ব থেকেই এ কাজটা করে যাচ্ছি। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এটা করবো।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা