kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

পাটুরিয়া ফেরিঘাট ও আরিচা নৌবন্দরে ভাঙন শুরু

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৭ মে, ২০২০ ১৮:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাটুরিয়া ফেরিঘাট ও আরিচা নৌবন্দরে ভাঙন শুরু

পাটুরিয়া ফেরিঘাট এবং আরিচা নৌবন্দরে হঠাৎ করে ভাঙন শুরু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে গত কয়েকদিনের বৃষ্টি এবং পদ্মা ও যমুনা নদী উত্তাল থাকায় এই ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙনরোধে দ্রুত পদক্ষেপের দাবি করেছেন স্থানীয়রা।

রাজধানী ঢাকার সাথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কয়েকটি জেলার সড়ক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি সার্ভিস। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, পাটুরিয়া অংশের ৩ নম্বর ঘাট থেকে ৫ নম্বর ঘাটের কয়েকটি অংশে ভাঙন শুরু হয়েছে। প্রবল স্রোত আর বড়বড় ঢেউয়ের কারণে পদ্মা নদী এখানে খুবই উত্তাল। পাশাপাশি কয়েকদিন ধরে প্রবল বৃষ্টিতে পাড়ের মাটি ধসে শুরু হয়েছে ভাঙন।  

বিআইডাব্লিউটিএ আরিচা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী নিজাম উদ্দিন পাঠান জানান, আজ সকালে বিআইডাব্লিউটিএ এর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদিক ঘাট এলাকার ভাঙন পরিদর্শন করেছেন।   তার নির্দেশে জরুরি ভিত্তিতে পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় জিও ব্যাগ ফেলার কাজ শুরু করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ভাঙন রোধ করা সম্ভব হবে। 

এদিকে যমুনা নদীর ভাঙনে আরিচা নৌবন্দরের নিহালপুর থেকে দক্ষিণে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ভাঙন শুরু হয়েছে। নৌবন্দরের ব্যবসায়ীরা জানান, কয়েকদিন আগে ভাঙন শুরু হলে তারা নিজেরাই ভাঙন ঠেকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত ব্যব্স্থা না নিলে অনেক দোকানপাট নদীতে চলে যাবে বলে তারা আশঙ্কা করছেন।  

পানি উন্নয়ন বোর্ড মানিকগঞ্জ অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাঈন উদ্দিন জানান, আরিচা নৌবন্দর এলাকায় ভাঙন ঠেকাতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বালুর ব্যগ ফেলার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ১৩ হাজার ব্যাগের জন্য ব্যয় হবে ৬০ লাখ টাকা। তবে কাজের গতি ও পরিধি বৃদ্ধি করতে হবে। এ জন্য অতিরিক্ত বরাদ্দের আবেদন করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা