kalerkantho

শুক্রবার। ২৬ আষাঢ় ১৪২৭। ১০ জুলাই ২০২০। ১৮ জিলকদ ১৪৪১

সীতাকুণ্ডে কাভার্ডভ্যান ছিনতাইয়ের টাকা মাটি খুঁড়ে উদ্ধার

সৌমিত্র চক্রবর্তী, সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম)   

২৭ মে, ২০২০ ০৮:৩১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে কাভার্ডভ্যান ছিনতাইয়ের টাকা মাটি খুঁড়ে উদ্ধার

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে একটি কাভার্ডভ্যানের চালককে জিম্মি করে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা, চেক ও মোবাইল লুটের ঘটনায় এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে লুন্ঠিত ১ লাখ ৫ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার বিকালে সীতাকুণ্ড (সার্কেল) এর এডিশনাল এসপি শম্পা রানী সাহার নেতৃত্বে পুলিশ এই অভিযান পরিচালনা করেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের মাদারবাড়ির চাঁদ পরিবহন সংস্থার একটি কাভার্ডভ্যান (নং চট্টমেট্টো ট- ১১-৭৯৯৫) যোগে ঐ প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার শামীম আফছান ও গাড়ি চালক মো. সুমন ঢাকার তেজগাঁও থেকে গত শুক্রবার রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। 

শনিবার ভোর ৪টার দিকে তাদের গাড়িটি সীতাকুণ্ডের জোড়আমতল কেডিএস লজেষ্ট্রিক ডিপো এলাকায় পৌঁছানোর পর গাড়ি থামিয়ে ম্যানেজার শামীম টয়লেটে গেলে ৩-৪ জন ছিনতাইকারী এসে গাড়ি চালক সুমন অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ব্যাগে থাকা ২লাখ ১০ হাজার ও ৩টি ব্যাংক চেক লুটে নেয়। এ সময় সুমনের চিৎকার শুনে শামীম এগিয়ে আসলে ছিনতাইকারীরাও তাকেও জিম্মি করে দুই জনের সাথে থাকা ব্যক্তিগত আরো ২০ হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। 

এ ঘটনায় চাঁদ পরিবহনের ম্যানেজার শামীম আহমেদ বাদী হয়ে ২৩ মে সীতাকুণ্ড থানায় অজ্ঞাত ৩-৪ জন আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে পুলিশ অনুসন্ধান চালিয়ে উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের উত্তর ঘোড়ামরা ছরারকুল গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে ইকবাল হোসেন প্রকাশ বাংলা ভাইকে (২৬) গ্রেপ্তার করে সোমবার রিমান্ডে আনে।

রিমান্ডে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ইকবাল ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলে মঙ্গলবার বিকালে সীতাকুণ্ড (সার্কেল) এর এডিশনাল এসপি শম্পা রানী সাহার নেতৃত্বে ওসি মোঃ ফিরোজ হোসেন মোল্লা, ওসি (ইন্টিলিজেন্স) সুমন বণিক, মামলার তদন্তকারী অফিসার ইকরামুল ইসলাম ও এএসআই কাউছার, ইমরান ও হাসান তারেক ইকবালকে নিয়ে তার নতুন বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মাটির নিচে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় লুন্ঠিত ১ লাখ ৫ হাজার ৫’শ টাকা উদ্ধার করেন। 

সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র কাভার্ডভ্যানের চালক ও ম্যানেজার জিম্মি করে টাকা, চেক ও মোবাইল ছিনতাই করেছিল। তারা কাউকে চিনতে না পারায় অজ্ঞাত ৩-৪ জনকে আসামি করেন। এরপর আমরা অনুসন্ধান করে ইকবালকে গ্রেপ্তার করি। পরে রিমান্ডে আনলে সে জিজ্ঞাসাবাদে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ঘটনার বর্ণনা দেয়। এরপর আমরা মঙ্গলবার বিকালে তাকে নিয়ে এডিশনাল এসপি শম্পা রানী সাহা স্যারের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করি। এতে ইকবালের দেখিয়ে দেওয়া বাড়ির মাটি খুঁড়ে সেখান থেকে ১লাখ ৫ হাজার ৫’শ টাকা উদ্ধার করি। 

ওসি আরো বলেন, আমরা ঘটনায় জড়িত অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা