kalerkantho

সোমবার । ২৯ আষাঢ় ১৪২৭। ১৩ জুলাই ২০২০। ২১ জিলকদ ১৪৪১

পঞ্চগড়ে গিয়ে শনাক্ত হলেন নারী পুলিশসহ ১৪ জন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

২৪ মে, ২০২০ ২৩:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চগড়ে গিয়ে শনাক্ত হলেন নারী পুলিশসহ ১৪ জন

পঞ্চগড়ে নতুন করে তিনজন নারী পুলিশ সদস্যসহ ১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তারা সকলেই ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর ও কুমিল্লা ফেরত। আক্রান্তদের মধ্যে দেবীগঞ্জ উপজেলায় আটজন, বোদা উপজেলায় দুজন ও পঞ্চগড় সদর উপজেলায় চারজন রয়েছেন। রবিবার সন্ধ্যায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরীক্ষাগারে তাদের নমুনা পরীক্ষায় করোনা ধরা পড়ে। এ নিয়ে জেলায় মোট ৫১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ জন এবং মারা গেছেন একজন।

সূত্র জানায়, নতুন আক্রান্ত ১৪ জনের মধ্যে ৮ জনই দেবীগঞ্জ উপজেলার পামুলী ইউনিয়নের বাসিন্দা। তাদের মধ্যে হাসানপাড়া কাঠালতলী এলাকার ২২ বছর বয়সী যুবক ১৪ মে ঢাকা থেকে, সরকারপাড়া এলাকার ২৫ বছর বয়সী যুবক ১৭ মে কুমিল্লা থেকে, একই এলাকার এক দম্পতি ১৫ মে ঢাকা থেকে, ঢাঙ্গীরহাট এলাকার ৩২ বছর বয়সী ব্যক্তি ১৭ মে গাজীপুর থেকে এবং কাটনহারি এলাকার দুই ব্যক্তি ১৫ মে ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরেছেন। এরপর তারা হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

বোদা উপজেলায় নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে একজনের বাড়ি সাকোয়া ইউনিয়নের প্রধানপাড়া এলাকায়। তিনি ১৫ মে ঢাকা থেকে পরিবারের সাথে বাড়ি ফেরেন। উপজেলার আক্রান্ত অপরজনের বাড়ি মাড়েয়া ইউনিয়নের আমিননগর এলাকায়। আক্রান্ত যুবক সম্প্রতি মুন্সীগঞ্জ থেকে বাড়ি ফিরেছেন।

পঞ্চগড় সদর উপজেলায় নতুন করে আক্রান্ত চারজনের মধ্যে তিনজনই নারী পুলিশ সদস্য। তারা সম্প্রতি বদলি হয়ে পঞ্চগড়ে যোগদান করেন। উপজেলায় নতুন করে আক্রান্ত অপরজনের বাড়ি ফুলতলা এলাকায়। তিনি সম্প্রতি ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরেন। পঞ্চগড়ে আসার পর তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, ১৫ মে ঢাকা থেকে ৮ জন নারী পুলিশ কনস্টবল পঞ্চগড় জেলায় যোগদান করেন। তাদের সকলের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তিনজনের করোনা ধরা পড়ে। তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

পঞ্চগড় সিভিল সার্জন ডা. মো. ফজলুর রহমান জানান, ঢাকা,গাজীপুর, কুমিল্লা, মুন্সিগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থান থেকে বাড়িতে ফিরে আসার খবর পেয়ে তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল। যাদের করোনা শনাক্ত হয়েছে তাদের বাড়িসহ আশপাশের কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করে রাখা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা