kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

পরিবার নিয়ে পালিয়ে যান করোনা আক্রান্ত ব্যবসায়ী!

লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২৪ মে, ২০২০ ০১:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরিবার নিয়ে পালিয়ে যান করোনা আক্রান্ত ব্যবসায়ী!

করোনায় আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম থেকে পরিবার নিয়ে পালিয়ে কুমিল্লার লাকসামে গ্রামের বাড়িতে চলে এসেছেন এক ব্যবসায়ী। শনিবার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে লাকসাম উপজেলা প্রশাসন ওই ব্যক্তির বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে। এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে আসা ওই ব্যবসায়ী পরিবারের অপর সদস্যসহ বাড়ির অন্যান্যদের নমুনা সংগ্রহ করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (কুমেক) ল্যাবে পাঠিয়েছে। 

উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের নারায়নপুর গ্রামের ৩৮ বছর বয়সী ওই ব্যবসায়ী পরিবার নিয়ে চট্টগ্রাম থাকেন। সেখানে বন্দরটিলা বাজারে তার ইলেকট্রনিক্স দোকান রয়েছে। কয়েকদিন থেকেই তিনি জ্বর, গলাব্যাথা ও সর্দি-কাশিতে ভুগছেন। করোনা উপসর্গের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য গত বুধবার তিনি (২০ মে) চট্টগ্রামের ফৌজদারহাট জেনারেল হাসপাতালে যান এবং সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক করোনা সংক্রামণ পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করেন।

এদিকে, নমুনার রিপোর্ট আসার আগেই তিনি একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে শুক্রবার (২২ মে) গভীর রাতে স্ত্রী (২৮), ছেলে (১১), মেয়ে (৫), ভাই (২৮) ও গৃহকর্মীকে (১৪) নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে পালিয়ে লাকসামের গ্রামের বাড়িতে চলে আসেন।

অপরদিকে, আজ শনিবার চট্টগ্রাম প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই ব্যবসায়ীর করোনা পজিটিভের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। বিষয়টি লাকসাম উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসন এবং স্বাস্থ্যবিভাগ অবহিত হওয়ার পর তাৎক্ষণিক করোনা আক্রান্ত ব্যবসায়ীর বাড়িটি লকডাউন (অবরুদ্ধ) করে দেয়। আক্রান্ত ওই ব্যবসায়ীকে হোম আইসোলশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া শুরু হয়েছে। এছাড়া ওই ব্যবসায়ী পরিবারের চট্টগ্রামফেরত ও বাড়িতে থাকা সকল সদস্যদেরসহ কমপক্ষে ১০ জনের শারীরিক অবস্থা নিশ্চিত হতে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (কুমেক) ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ও করোনা রেপিড রেসপন্স দলের অন্যতম সদস্য ডা. মেহেদী হাসান জিতু বিষয়টি জানিয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল আলী ওই ব্যবসায়ীর বাড়ি লকডাউন (অবরুদ্ধ) করে আক্রান্ত ব্যক্তিকে হোম আইসোলশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা