kalerkantho

সোমবার । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৫  মে ২০২০। ১ শাওয়াল ১৪৪১

সীতাকুণ্ডে প্রতিপক্ষের হামলায় বৃদ্ধ নিহত

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৩ মে, ২০২০ ১৭:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে প্রতিপক্ষের হামলায় বৃদ্ধ নিহত

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পুকুরে গোসলের সময় দুই মহিলার ঝগড়ার জেরে চাচাতো-জেঠাতো ভাইদের দুই পরিবারের মধ্যে মারামারির জেরে রহুল আমিন (৭০) নামক এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর বাঁশবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং নিহতের লাশ পোষ্টমর্টেমের জন্য মর্গে প্রেরণ করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মীর হোসেন সেরাং বাড়ির বহুল আমিনের পরিবারের সাথে জায়গা-জমি নিয়ে পার্শ্ববর্তী রফিকুল আলমের পরিবারের দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল। সম্পর্কে তারা চাচাতো-জেঠাতো ভাই। শনিবার সকাল ১০টার দিকে দুই পরিবারের গৃহবধূরা পুকুরে গোসল করতে গিয়ে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে এ নিয়ে দুই পরিবারের লোকজন মারামারিতে লিপ্ত হন। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকজন লাঠি নিয়ে বৃদ্ধ রহুল আমিনের মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারধর করলে তিনি গুরুতর আহত হন।

তার পরিবারের লোকজন তাকে নিয়ে সীতাকুণ্ড হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রহুল আমিন ওই বাড়ির মৃত মীর হোসেনের ছেলে। হাসপাতাল থেকে পুলিশকে খুনের ঘটনা জানালে সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা, পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম শেখ, পরিদর্শক (অপারেশনস) আবুল কালাম, পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) সুমন বণিক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সেখানে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তারা ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ৩ নারী-পুরুষকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, চাচাতো-জেঠাতো ভাইয়ের পরিবারের মধ্যে পূর্ব থেকে শত্রুতা ছিল। শনিবার সকালে দুই পরিবারের দুই মহিলা পুকুরে গোসল করতে গিয়ে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। এর জেরে পরবর্তীতে দুটি পরিবারের নারী-পুরুষরা মারামারিতে লিপ্ত হলে প্রতিপক্ষের লাঠিসোঁটার আঘাতে রহুল আমিন মারা যান। তিনি বলেন, আমরা নিহতের পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন নারী-পুরুষকে আটক করেছি। এ বিষয়ে একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা