kalerkantho

সোমবার । ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ১  জুন ২০২০। ৮ শাওয়াল ১৪৪১

সুন্দরগঞ্জে মারা যাওয়া সেই নারী করোনা আক্রান্ত ছিলেন

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি   

২২ মে, ২০২০ ২২:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুন্দরগঞ্জে মারা যাওয়া সেই নারী করোনা আক্রান্ত ছিলেন

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ঢাকা ফেরত সেই নারী (২৭) করোনা আক্রান্ত ছিলেন। গত রবিবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় শ্বাসকষ্ট ও কাশি নিয়ে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার আগেই ওই নারীর মৃত্যু হয়। ওই নারীর বাবার বাড়ি উপজেলার বামনডাঙ্গার মনমথ (নয়াপাড়া) গ্রামে।

শুক্রবার (২২ মে) বিকেলে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব টেস্টে ঢাকাফেরত ওই নারীর নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে করোনা আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। তবে, ওই নারীর স্বামীর শরীরে করোনার কোন সংক্রামক পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, গত ১৪ মে সকালে ঢাকা থেকে জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও কাশি নিয়ে গ্রামের বাড়িতে আসেন ওই নারী ও তাঁর স্বামী। প্রথমে ওই দম্পতি করোনা উপসর্গ নিয়ে ওই নারীর বাবার বাড়ি সর্বানন্দ ইউনিয়নের বাছহাটি (রামগঞ্জ) এলাকায় যান। 

এসময় করোনা সংক্রামক সন্দেহে স্থানীয়রা তাঁদের বাড়িতে ঢুকতে বাধা দেয়। পরে ওই নারীর স্বামীর বাড়ি বামনডাঙ্গার মনমথ গ্রামে অবস্থান নেয়। পরের দিন ওই নারীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরিবারের লোকজন তাঁকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়। ওই নারীকে হাসপাতালে নেয়ার হলে চিকিৎসা দেয়ার আগেই সেখানে মারা যান তিনি। 
এরপর ওই নারীর নমুনা সংগ্রহ করে রমেক হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠান স্বাস্থ্য বিভাগ। সে অনুযায়ী আজ বিকেলে রমেক পিসিআর ল্যাব টেস্টের ফলাফলে মারা যাওয়া ওই নারীর করোনা আক্রান্তের বিষয় নিশ্চিত হয়।

এর আগে, ঘটনার দিন মারা যাওয়া ওই নারীর লাশ গ্রামের বাড়িতে আনলে পরিবারের লোকজন পালিয়ে যান। এমনকি মৃতের লাশ দেখতেও আসেনি স্বজনরা। পরে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগ মৃতের সৎকার করেন। করোনা লাশ দাফন কমিটি নিহতের লাশ দাফন করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আশরাফুজ্জামান সরকার বলেন, উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ওই নারী করোনা আক্রান্ত ছিলেন। আজ সন্ধ্যায় তার নমুনা পরীক্ষায় সংক্রামক ধরা পড়ে। তবে, ঘটনার পরপরই ওই নারীর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা