kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

১৬২০ হোটেল শ্রমিকের মানবেতর জীবন

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

১৯ এপ্রিল, ২০২০ ২০:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৬২০ হোটেল শ্রমিকের মানবেতর জীবন

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ও পৌরসভার হোটেল রেস্তোরায় কর্মরত শ্রমিকদের চরম দুর্দিন চলছে। করোনাভাইরাসে দেশব্যাপী গত ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ আছে হোটেল। এতে পার্বতীপুর পৌর শহরে ২৬টি ও দশ ইউনিয়নে ৫৭টি হোটেল রেস্তোরা বন্ধ হয়ে আছে। এর ফলে এসব হোটেল রেস্তোরার ১৬২০ শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পড়েছে। দিন বা মাস ভিত্তিক এসকল হোটল শ্রমিকরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, সবমিলে উপজেলার ছোট-বড় ৮৩টি হোটেল ও রেস্তোরায় কর্মরত এক হাজার ২২০ জন পুরুষ শ্রমিক ও ৪০০ মহিলা শ্রমিক কাজ করে তাদের সংসার নির্বাহ করে থাকেন। পার্বতীপুর কেন্দ্রিক সংগঠন দিনাজপুর জেলা হোটেল ও রেস্টুরেন্ট শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাকসুদুল আলম শাহ বলেন, আমাদের এই রেজিষ্টার্ড সংগঠনে এক হাজা ১৬৪ জন শ্রমিক রয়েছে। এর বাইরে ৪৫৬ জন শ্রমিক আছেন। যারা এ সংগঠনের কার্ডধারী সদস্য নন।

সংগঠনের সহ-সভাপতি শ্রী রতন কুন্ডু বলেন, সবচেয়ে অসুবিধে হচ্ছে মহিলা শ্রমিকদের। এসব শ্রমিক হোটেল রেস্তোরায় মরিচ বাটা, মশলা পেষা, থালা বাটি ধোয়া ও তরকারি কাটার কাজ করে থাকেন। এরা ১২ ঘণ্টা শ্রম দিয়ে মজুরী পায় ২০০ টাকা করে। করোনার কারণে হোটেল রেস্তোরা বন্ধ হওয়ায় চরম সংকটের মধ্যে পড়েছেন এসব মহিলা শ্রমিকরা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা তাপস রায় বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান  হাফিজুল ইসলাম প্রামানিকের উপস্থিতিতে হোটেল শ্রমিকদের মধ্যে চাল, ডাল, তেলসহ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা