kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

হালুয়াঘাটে বাজারে থামানো যাচ্ছে না জনস্রোত

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১০ এপ্রিল, ২০২০ ১৮:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হালুয়াঘাটে বাজারে থামানো যাচ্ছে না জনস্রোত

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার প্রতিটি কাঁচা বাজার ও পাইকারি বাজার খোলা জায়গায় বসানো হয়েছে। এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাজারে আইনশৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও টহলে থাকলেও থামানো যাচ্ছে না জনস্রোত।

আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সবচেয়ে বড় বাজার বলে খ্যাত ধারা বাজারে গিয়ে দেখা যায়, এখানে পূর্ববর্তী কাঁচা বাজার মাদরাসা রোডে থাকলেও করোনাভাইরাসের জন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বাইপাস সড়কের পাশে বসানো হয়েছে এই বাজার। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হচ্ছে না। মাছ, পান, শাক-সবজি, হলুদ-মরিচ, পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে কোনো নিয়ম না মেনে একসাথে বসেছেন দোকানীরা। সবকিছু এক জায়গায় পেয়ে জনস্রোত যেন দ্বিগুণ হয়ে গেছে। মানুষজনের ভিড় দেখে বুঝার উপায় নেই এখানে কোনো সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে।

এই বাজারে শাক বিক্রেতা কাইয়ুম বলেন, আমরা তো খুচরা বিক্রেতা। আমাদের জন্য যদি আলাদা জায়গা থাকতো তাহলে গাদাগাদি করে বসতে হতো না।

বাজারের কাঁচামাল কিনতে আসা আব্দুল হালিম বলেন, সবগুলো দোকান একসাথে। এখানেই তো সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। আমি একা চাইলেই তো মানতে পারছি না। দোকানগুলো একসাথে না করে বিভিন্ন দোকান বিভিন্ন জায়গায় করলে হইতো এই সমস্যা হতো না।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমদ বিপ্লব বলেন, উপজেলার মধ্যে এই বাজারটি সবচেয়ে বড়। পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন ইউনিয়নের মানুষ এখানে বাজার করতে আসে। কিন্তু আমরা প্রশাসনের নির্দেশ মতো কাঁচা বাজার স্থানান্তর করে বাইপাস সড়কে নিয়ে আসি। এবং দোকানগুলোর সামনে বৃত্ত এঁকে ক্রেতাদের নিরাপদ দূরত্ব দেখিয়ে দেই। কিন্তু তা মানছেন না কেউ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম এ বিষয়ে বলেন, আমরা জনগণকে সচেতন করতে সব ধরনের প্রচেষ্টায় অব্যাহত রেখেছি। প্রতিটি দোকান ৫ ফুট দূরত্বে বসার কথা বার বার বলা হয়েছে। স্থান সংকুলান না হওয়ায় এই বাজারে সামাজিক দূরত্ব বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না। আমরা পান মহলটি অন্যত্র সরিয়ে দেব। যেহেতু করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ, তাই সবাইকে অপ্রয়োজনে বাজারে না আসার অনুরোধ জানান তিনি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা