kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

জামালপুরে নারীর মৃত্যুতে ২০ বাড়ি লকডাউন

জামালপুর প্রতিনিধি   

৮ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জামালপুরে নারীর মৃত্যুতে ২০ বাড়ি লকডাউন

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় জ্বর, বমি ও মাথাব্যথা উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। জনমনে এ নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে মঙ্গলবার রাত দশটায় তার নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। বিকেলে উপজেলার চরবানিপাকুরিয়া ইউনিয়নের ভাবকি গ্রামে ভগ্নিপতির বাড়িতে মারা যান নারী।

এদিকে রাতে নারীর মরদেহের দাফন করা হয় স্বামীর বাড়ি মেলান্দহ পৌরসভার আদিপৈত গ্রামে। সেখানে ২০টি বাড়ি লকডাউন করেছে স্থানীয় প্রশাসন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মেলান্দহ থানার ওসি মো. রেজাউল ইসলাম খান।

স্বজনরা জানান, ৩৫ বছর বয়সী নারী মেলান্দহ পৌরসভার আদিপৈত গ্রামে স্বামীর বাড়িতেই থাকতেন। দশদিন আগে তিনি একই উপজেলার চরবানিপাকুরিয়া ইউনিয়নের ভাবকি গ্রামে যান ভগ্নিপতির বাড়িতে বেড়াতে। সেখানেই তিনি জ্বর, বমি ও মাথাব্যথায় আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন।  মঙ্গলবার বেলা তিনটার গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে মেলান্দহ উপজেলা হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান। পরে স্বজনরা তার মরদেহ দাফনের জন্য স্বামীর বাড়ি আদিপৈত গ্রামে নিয়ে যান। 

করোনা নিয়ে ঝুঁকিপূর্ন বিবেচনায় চরবানিপাকুরিয়া ইউনিয়ন সোমবার লকডাউন ঘোষণা করা হয়। সেক্ষেত্রে গৃহবধূ সেই ইউনিয়নে অবস্থানকালে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ তৈরী হয়। নানামূখী আলোচনার পর রাত দশটার দিকে তার নমুনা সংগ্রহ করে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ লাশ দাফনের অনুমতি দেয়। রাত ১১টায় তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

মেলান্দহ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ’নারী করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ছিলেন কিনা তা নিশ্চিত হতে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নমুনা বুধবার ময়মনসিংহে পাঠানো হবে। সতর্কতার পাশাপাশি সকল নিয়ম অনুসরণ করেই মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে ।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা