kalerkantho

রবিবার । ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩১  মে ২০২০। ৭ শাওয়াল ১৪৪১

টেকনাফের পাহাড় থেকে চোরাই পাথর ভাঙার মেশিন জব্দ

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

৭ এপ্রিল, ২০২০ ০৩:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টেকনাফের পাহাড় থেকে চোরাই পাথর ভাঙার মেশিন জব্দ

কক্সবাজারের টেকনাফের বন বিভাগের পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে বনকর্মীরা একটি পাহাড়ি পাথর ভাঙার মেশিন জব্দ করেছে। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সরকারি বনের গহীন অরণ্যে পাথর উত্তেলনকারীরা দীর্ঘদিন ধরে কৌশলে পাহাড়ী পাথর উত্তোলন করে আসছিল। পাথর উত্তোলনকারীরা পাহাড়ী পাথর উত্তোলন করে পাহাড়েই বসানো মেশিনে সেই পাথর ভেঙে পাচার করছিল দেশের নানা স্থানে।

টেকনাফ বন রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক জানিয়েছেন, গতকাল সোমবার দুপুরে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বনকর্মীদের নিয়ে হ্নীলা রঙ্গিখালীর গভীর জঙ্গলে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় পাহাড়ে বসানো পাথর ভাঙার মেশিনে লোকজন পাথর ভাঙছিল। বনকর্মীদের দেখে তারা পালিয়ে যায়। 

বন রেঞ্জ কর্মকর্তা আরো জানান, এ সময় পাহাড়ের পার্শ্বের ২টি মিনি ট্রাকে (ডাম্পার গাড়ি) মেশিনে ভাঙা পাথর বোঝাই করা হচ্ছিল। বন কর্মীদের উপস্থিতি দেখে ট্রাক দুটি নিয়ে পাথর উত্তোলনকারীরা সটকে পড়ে।

বন কর্মকর্তা জানান, স্থানীয় মৃত এবাদুল্লাহর পুত্র জুহুর আলম ও আব্দুস শুক্কুরের পুত্র হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি প্রভাবশালী মহল সরকারি পাহাড়ি পাথর বিভিন্ন স্থাপনায় সরবরাহ করে আসছে। বিষয়টি স্থানীয় বনবিভাগ অবহিত হওয়ার পর এই অভিযান চালানো হয় বলে রেঞ্জ কর্মকর্তা নিশ্চিত করেন।

বন বিভাগের নিয়োজিত স্থানীয় ভিলেজার ও আওয়ামী লীগ নেতা গুরা মিয়া জানান, এসব অপরাধে জড়িতরা প্রভাবশালী হওয়ায় বিভিন্ন জনের সঙ্গে আঁতাত করে এই কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। আমরা প্রতিবাদ করলেও কেউ কানে নেয় না। তাই আজ বনের এই দন্য দশা।

এই ব্যাপারে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. হুমায়ূন কবির জানান, বনজ সম্পদ ধ্বংসকারীদের সঙ্গে কোনো ধরনের আপস নেই। নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে চোরাই পাথর ভাঙার মেশিন জব্দ করা হয়েছে। এই ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা