kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৪ জুন ২০২০। ১১ শাওয়াল ১৪৪১

গাছে বেঁধে পুলিশে খবর দিল গ্রামবাসী

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি   

৫ এপ্রিল, ২০২০ ০৯:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাছে বেঁধে পুলিশে খবর দিল গ্রামবাসী

যশোরের অভয়নগরে রহিম (২৫) নামে ছুরিকাঘাতকারী এক সন্ত্রাসীকে গাছের সাথে বেঁধে পুলিশে খবর দিয়েছে গ্রামবাসী। পুলিশ রহিমকে উদ্ধার করে অভয়নগর থানা হেফাজতে নিয়ে গেছে। এছাড়া ছুরিকাঘাতে মারাত্মক আহত রিয়াজ মাহমুদকে (২২) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

শনিবার দুপুরে উপজেলার প্রেমবাগ ইউনিয়নের গাবখালী ধলিরগাতী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ট্রাকের হেলপার সন্ত্রাসী রহিম প্রেমবাগ ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের পশ্চিমপাড়ার জামাল শেখের ছেলে।

আটক রহিম জানায়, মাদককে কেন্দ্র করে একদিন পূর্বে মাগুরা বাজারে রিয়াজের সাথে একই গ্রামের জাকিরের ছেলে নাঈম (২৫), ইকবালের ছেলে নাহিদ (২৪), রেজাউল ইসলামের ছেলে বিপ্লব (২৬) ও তার সাথে বিবাদ সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে শনিবার দুপুরে সে মোবাইল ফোনে রিয়াজকে বাড়ি থেকে ধলিরগাতী গ্রামের যোগির পুকুর পাড়ে আসতে বলে। রিয়াজ পুকুর পাড়ে আসলে তারা চারজন রিয়াজের উপর চড়াও হয়। একপর্যায়ে নাঈম, নাহিদ ও বিপ্লব রিয়াজকে ছুরিকাঘাত করতে শুরু করে। রিয়াজের চিৎকারে গ্রামবাসী এগিয়ে আসলে সে ধরা পড়ে যায়। পরে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার কওে থানায় নিয়ে যায়। সে ছুরিকাঘাত না করলেও বাড়ি থেকে বন্ধু রিয়াজকে ডেকে আনে বলে স্বীকার করে।

গ্রামবাসী জানায়, মনছুর আলী মোল্যার ছেলে আহত রিয়াজের চিৎকার শুনে গ্রামবাসী এগিয়ে আসে। এ সময় নাঈম, নাহিদ ও বিপ্লব অস্ত্র হাতে পালিয়ে গেলেও সন্ত্রাসী রহিমকে গ্রামবাসী ধরে ফেলে এবং গ্রাছের সাথে বেঁধে পুলিশে খবর দেয়।

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, শনিবার দুপুরে রিয়াজ নামে মারাত্মক আহক এক যুবককে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ক্ষত করা হয়েছে, ফুসফুসেও আঘাত লেগেছে। খুমেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, রোগীর অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ।

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, ছুরিকাঘাতের ঘটনায় রহিম নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। তদন্ত চলছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা