kalerkantho

বুধবার । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৭  মে ২০২০। ৩ শাওয়াল ১৪৪১

বাকৃবি শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি   

৪ এপ্রিল, ২০২০ ২২:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাকৃবি শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক পড়েছে। ঘরে থাকতেই তারা ন্যাড়া করছেন বলে জানিয়েছেন। এখন পর্যন্ত প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী ন্যাড়া করেছেন বলে জানা গেছে।

ন্যাড়া করা এসব শিক্ষার্থীরা হলেন, কামরুল হাসান কামু, সাদিকুর রহমান, মতিউর রহমান সুমন, হাবিবুর রহমান, ইসতিয়াক আহমেদ প্রিন্স, সাব্বির হাসান দূর্জয়, বিশ্বজিৎ ভৌমিক, নেহাল নাফিস, মোহাম্মদ সাব্বির হোসেন, আবীর হোসেন, জিহাদ হোসেন, শিবলী সাদিক শাহ, বাপ্পী দাস, কিশোর সরকার সুমন, হিমু, সাগর সারওয়ার, সোহেল রানা সোহান, শায়েক আবরার প্রমুখ।

ন্যাড়া করা এসব শিক্ষার্থীরা বলছেন, মাথা ন্যাড়া করলে বন্ধু-বান্ধব একটু বেশিই দুষ্টুমি করে। অনেক সময় বন্ধুরা টিটকারিও করে। সারাক্ষণ বাসার মধ্যে থাকতে হচ্ছে, যার ফলে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা সাক্ষাৎ হচ্ছে না। বন্ধুদের থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ দূরত্ব থাকার কারণেও বেছে নিয়েছেন এই সময়টাকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের শিক্ষার্থী হাবিবুর রহমান বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এখন সবাইকে গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছে। কতদিন পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, মানুষ তার স্বাভাবিক কর্মজীবনে ফিরবেন, তার নিশ্চয়তা নেই। তাছাড়া সরকারি নির্দেশনায় এখন অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতো সেলুনগুলো বন্ধ হওয়ায় বাড়িতে বসে এই সুযোগে মাথা ন্যাড়া করে নিলাম।

কামরুল হাসান কামু নামের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, সেলুনে অনেক সময় ভিড় থাকে এছাড়া চুলকাটানোর সময় নাপিতের সংস্পর্শে আসতে হয়। এই দুটো বিষয় চলমান সময়ের জন্য এড়িয়ে চলতে হবে কারণ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ সেলুন থেকেও হতে পারে। তাই বাড়িতে ন্যাড়া করে জনসমাগম থেকে দূরে থাকা যাবে এবং ন্যাড়া করলে এমনিতেই আর বাড়ির বাইরে যেতে ইচ্ছে করবে না যা হোম কোয়ারেন্টিনের জন্যে ভালো।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা