kalerkantho

সোমবার । ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ১  জুন ২০২০। ৮ শাওয়াল ১৪৪১

শাজাহানপুরে প্রতিপক্ষের সাথে বিরোধে প্রাণ গেল যুবকের

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৪ এপ্রিল, ২০২০ ১৭:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শাজাহানপুরে প্রতিপক্ষের সাথে বিরোধে প্রাণ গেল যুবকের

বগুড়ার শাজাহানপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আবু বকর সিদ্দিক (২৮) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে আহত হয়েছে ৩ জন।

আজ শনিবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার আশেকপুর ইউনিয়নের মাথাইলচাপড় পশ্চিমপাড়ায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত আবু বকর সিদ্দিক উপজেলার মাথাইলচাপর পূর্বপাড়ার ইউসুব আলী পুত্র। তিনি ছয় মাসের ছুটিতে মালয়েশিয়া থেকে দেশে এসেছেন।

আহতরা হলেন, একই গ্রামের রুহুল আমিনের পুত্র শাবরুল বন্দর শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাাদক মনিরুজ্জামান (৩২), আবু তালেবের পুত্র পিকআপ ভ্যানচালক বাদল (২৬) এবং সাইফুল ইসলামের পুত্র সাগর (২৮)।

আহতদের মধ্যে মনিরুজ্জামান ও বাদল গুরুতর আহত অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অপর আহত সাগর স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আহত সাগর জানান, মাথাইল চাপড় পশ্চিমপাড়া বাদল নামে এক পিকআপ ভ্যানচালক অবসর সময়ে মাথাইল চাপড় পূর্বপাড়ায় এসে সময় কাটাতেন। মাথাইল চাপড় পশ্চিমপাড়া টুকু মিয়ার পুত্র সুলতান ওরফে টিপু (৩৬) ও তার সহযোগীরা এটা পছন্দ করতেন না। এ নিয়ে টিপু বাহিনী বাদলের উপর ক্ষিপ্ত ছিল।

শনিবার বেলা ১২টার দিকে টিপু ও তার সহযোগীরা বাদলকে বেদম মারপিট করে ফেলে রেখেছে লোকমুখে এমন খবর পেয়ে নিহত আবু বকর সিদ্দিক, মনিরুজ্জামানসহ বেশ কয়েকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে যাওয়া মাত্র টিপু, সজিব, বাবু, রাহাত, শফিক সহ তাদের বাহিনীর সদস্যরা রাম দা, লোহার রড, পাইপ দিয়ে এলোপাথারি মারপিট শুরু করে। এক পর্যায়ে টিপু রাম দা দিয়ে আবু বকর সিদ্দিকের নাক, মুখ ও ডান হাত কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। মনিরুজ্জামানের পাজরে সুলপি দিয়ে আঘাত করে।

সাগর আরো জানান, টিপু শাজাহানপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতার ছত্রছায়ায় চলে। টিপুর দলীয় কোনো পরিচয়ন নাই। সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে বেড়ায়। প্রতিবাদ করার কারণেই টিপু বাহিনী তাদেরকে প্রতিপক্ষ ভেবে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। এঘটনায় টিপু বাহিনীর ভয়ে স্থানীয়রা কেহ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুল আজিজ জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় আহতদের হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবু বকর সিদ্দিক মারা যান। আহত দুইজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

থানার ওসি আজিম উদ্দীন জানান, হত্যার কারণ জানা যায়নি। স্থানীয়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা