kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

বসতবাড়িতে ভাঙচুর, লুট

জমির দ্বন্দ্বে গৃহবধূ হত্যা

চিতলমারী-কচুয়া (বাগেহাট) প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০২০ ১৮:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জমির দ্বন্দ্বে গৃহবধূ হত্যা

বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলায় বুধবার ইতি বেগম (১৯) নামে এক গৃহবধূর গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এলাকার প্রতিপক্ষদের সাথে দ্বন্দের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড হয়েছে বলে নিহতের পরিবার দাবি করেছে।

চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শরিফুল হক জানান, বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলার কলাতলা ইউনিয়নের কুনিয়া গ্রামের হাফিজুর মীরের বাড়িতেই তার স্ত্রী ইতি বেগমের গলা কাটা লাশ পাওয়া যায়। এ রিপোর্ট লেখাকালীন তিনি উপজেলার সীমান্তবর্তী ওই গ্রামে ঘটনার তদন্তে ছিলেন। মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

নিহতের স্বামী হাফিজুর মীর (৩২) জানান, মধুমতি নদী তীরের কুনিয়া গ্রামে ২২ বছর আগে জমি কিনে তারা বসবাস করে আসছেন। এই জমি স্থানীয় একটি মহল দীর্ঘদিন ধরে সুকৌশলে দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। তারা গরু চুরির অপবাদ দিয়ে গত সোমবার তাদের বাড়িতে হামলা, লুটতরাজ করে। এই বিষয়ে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছিলেন তার স্ত্রী। তারই জের ধরে এই হত্যা হয়েছে বলে তার ধারণা। 

অপরদিকে, নিহত ইতি বেগম মঙ্গলবার স্থানীয় সংবাদকর্মীদের কাছে অভিযোগ করেছিলেন, গরু চুরির অপবাদ দিয়ে গত সোমবার এলাকার কিছু লোক তাদের দুইটি বাড়ি ভাঙচুর ও ব্যাপক লুটতরাজ করে। এ সময় হামলাকারীরা হাতুড়ি, কুড়াল, সাবল ও লাঠিসোটা দিয়ে দুইটি বসতবাড়ি ব্যাপক ভাঙচুর করে। বেলকনির গ্রিল ভেঙে ঘরে ঢুকে নগদ আড়াই লক্ষ টাকা, চাল, ডাল, আলু, সরিষা, গোয়ালের ৫টি গরু, ১০টি ছাগল, ১৫-১৬টি হাস ও মুরগি এবং লোহার সিন্দুক নিয়ে যায়। সিন্দুকে আনুমানিক ১০-১২ ভরি স্বর্ণালংকার ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিল। ঘরের ভিতরের টিভি, ফ্রিজ, ফ্যান, মটর সাইকেল, হাড়ি কড়াইসহ যাবতীয় ফার্নিচার ভেঙে তছনছ করে। যাবার বেলায় তারা আমাদের জামা কাপড় কেটে কুচি কুচি করে বাগানে ফেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। 

বিষয়টি থানা পুলিশকে জানানোর পরে ওসি সাহেবে ভাঙচুরের ঘটনা এসে দেখেছিলেন। কিন্তু কেউ আটক হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা