kalerkantho

বুধবার । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৭  মে ২০২০। ৩ শাওয়াল ১৪৪১

৩২টি কার্গো ট্রাক থেকে গ্যাস কিনে চলছে কয়েক হাজার সিএনজি

বাঁশখালী ( চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৩২টি কার্গো ট্রাক থেকে গ্যাস কিনে চলছে কয়েক হাজার সিএনজি

চট্টগ্রাম জেলার দক্ষিণের বাঁশখালী, আনোয়ারা, সাতকানিয়া, লোহাগড়া ও চন্দনাইশ উপজেলার আরকান সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে যাত্রীবাহী বাস না চললেও হরদম চলছে সিএনজি অটোরিকশা। প্রত্যেক গাড়িতে চালকসহ অন্তত ৬/৭ জন যাত্রী গাদাগাদি করে চলছে। সাধারণ জনগণের ব্যাপক সংস্পর্শে চলার কারণে ব্যাপক হারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, দক্ষিণ চট্টগ্রামের আরকান সড়ক মূলত সিএনজি অটোরিকশা চলাচলের জন্য নিষিদ্ধ। করোনা প্রতিরোধে বর্তমানে যাত্রীবাহী বাস বন্ধ থাকায় ওই সড়কে শত শত সিএনজি অটোরিকশা বাধা ছাড়া চলছে। এ ছাড়া বাঁশখালী-সাতকানিয়া, বাঁশখালী-আনোয়ারা, বাঁশখালী-পেকুয়া, আনোয়ারা-চন্দনাইশ ও সাতকানিয়া-চন্দনাইশ সড়কে ব্যাপক হারে সিএনজি অটোরিকশা চলছে। সরকারি নির্দেশে করোনা প্রতিরোধে চট্টগ্রামের গ্যাস পাম্পগুলো বন্ধ থাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় সিএনজি অটোরিকশা চলাচল বন্ধ ছিল। কিন্তু সঙ্গবদ্ধ একটি গোষ্ঠী কার্গো ট্রাকে করে গ্যাস সিলিন্ডার ভরে দক্ষিণ চট্টগ্রামের ১০টি স্পটের প্রতিটি স্থানে ৩/৪টি করে সর্বমোট ৩২টি কার্গো ট্রাকে করে প্রকাশ্যে সিএনজি অটোরিকশাতে গ্যাস বিক্রয় চালিয়ে যাচ্ছে। ফলে সহজেই সিএনজি অটোরিকশা গ্যাস ভরতে পেরে বাধা ছাড়া প্রধান সড়কগুলোতে যাত্রী পরিবহনের কাজ চালাচ্ছে।

বাঁশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হিরক পাল বলেন, বিশ্বব্যাপী আতঙ্কিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গণপরিবহনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এ অবস্থায় সিএনজি অটোরিকশাগুলোতে মানুষের গাদাগাদি করে চলাচল চরম ঝুঁকিপূর্ণ। এসব বন্ধ করা জরুরি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা