kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

মধ্যরাতে দরিদ্রদের বাড়ি খাদ্যসামগ্রী নিয়ে হাজির মেয়র

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি    

৩১ মার্চ, ২০২০ ২২:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মধ্যরাতে দরিদ্রদের বাড়ি খাদ্যসামগ্রী নিয়ে হাজির মেয়র

বিশ্বজুড়ে মহামারি আকার ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। করোনার সংক্রামণরোধে সরকারি নির্দেশনায় বন্ধ রয়েছে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও যানবাহন। এতে বিপাকে পড়েছেন দেশের খেটে খাওয়া দিনমজুর ও নিন্মআয়ের মানুষ। ওই সকল অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদেরকে স্বস্ব উদ্যোগে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই নির্দেশনার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সোমবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত অবধি ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এবিএম আনিচ্ছুজ্জামান ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ১৫’শ অসহায় হতদরিদ্র দিনমজুর খেটে খাওয়া পরিবারের মাঝে বিতরণ করেছেন খাদ্যসামগ্রী।

সরকারি নির্দেশনায় স্থানীয় প্রশাসন বন্ধ করে দিয়েছে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও যান-বাহন। যেসকল শ্রমজীবী মানুষ একদিন কাজ না করলেই চুলোতে আগুন জ্বলে না, থাকতে হয় উপোস। তাদের বিষয়টি বিবেচনা করে পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডের চা দোকানি, দিনমজুর, ও নিন্মআয়ের ১৫’শ মানুষের তালিকা করেন পৌরমেয়র আনিছ।

এরপর তিনি নিজস্ব সেচ্ছাসেবক নিয়ে সোমবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১০ কেজি চাল, দুই কেজি ডাল, এক কেজি আলু, এক কেজি পেঁয়াজ ও এক তেলসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলদের মাধ্যমে একজন মানুষও যেন অনাহারে না থাকে সে ব্যাপারে খোঁজ রাখার আহ্বানের পাশাপাশি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছানোর দায়িত্ব নেন মেয়র নিজেই।

এ ছাড়া করোনাভাইরাস প্রকোপের শুরু থেকে ত্রিশাল পৌর এলাকায় বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করে তিনি। এরমধ্যে পৌরশহরের বিভিন্ন পয়েন্টে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, সাবান, হ্যান্ডওয়াশ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিতরণ ছাড়াও পৌরসভার কর্মীদের মাধ্যমে পৌরশহরে জীবানুনাশক ঔষধ ছিটানোসহ নানা কর্মসূচি পালন করেন। 

পৌরমেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ বলেন, প্রথম দফায় ১৫০০ পরিবারের তালিকা করে তাদের কাছে আমরা খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছি। ২য় দফায় তালিকা করে আরো ৫ হাজার নিম্নআয়ের অসহায় মানুষের মাঝে পর্যায়ক্রমে খাদ্রসামগ্রী পৌঁছানোসহ অন্যান্য সহযোগিতা করা হবে। উপজেলার একজন দরিদ্র মানুষ না খেয়ে থাকবে না বলে ঘোষণাও দেন তিনি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা