kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

ময়মনসিংহ সিটি

কাউন্সিলররা কোথায়?

করোনা মহামারির সংকটকালীন এ সময়ে কাউন্সিলরদের তেমন কোনো কার্যক্রম নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩১ মার্চ, ২০২০ ১৩:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কাউন্সিলররা কোথায়?

‘ময়মনসিংহ নতুন সিটি করপোরেশন হয়েছে। সেবা করার অঙ্গীকার নিয়ে নাগরিকদের ভোটে ওয়ার্ড কাউন্সিলররা নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু আজকের দুঃসময়ে অনেক ওয়ার্ড কাউন্সিলরকেই আমরা সেভাবে তৎপর দেখছি না। বিষয়টি নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ক্ষোভ আছে, প্রশ্ন আছে।’

কথাগুলো ময়মনসিংহ জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি মনিরা বেগম অনুর। শুধু তিনি নন, ময়মনসিংহের অনেক সচেতন নাগরিকের মধ্যে করোনাসংকটে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের বর্তমান সময়ের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন আছে, আছে হতাশা।

তবে নাগরিকরা একই সময়ে বর্তমান সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটুর প্রশংসা করেছে। মহিলা পরিষদ নেত্রী মনিরা বেগম অনু বলেন, ‘মেয়র মাঠে আছেন। দিন-রাত কাজ করছেন। এটি দেখে আমরা আশাবাদী হই।’

এলাকাবাসী জানায়, বর্তমান করোনাসংকটে সারা দেশে প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের ব্যক্তিরা মাঠে আছেন। অনেকে জনসচেতনতামূলক কাজ করছেন। অনেকে প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করছেন। অনেকে দরিদ্র ও অসহায়দের খাবারের ব্যবস্থা করছেন। ময়মনসিংহেও এমন কার্যক্রম চোখে পড়ে। কিন্তু অবাক করার বিষয় হচ্ছে নবগঠিত ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের অনেক কাউন্সিলরেরই কার্যক্রম তেমনভাবে চোখে পড়ছে না। হয় তাঁদের কাজ আড়ালে থাকছে। নয়তো তাঁরা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছেন না।

সূত্র মতে, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে মোট ৩৩টি ওয়ার্ডে ৩৩ জন পুরুষ কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলরসহ ৪১ জন জনপ্রতিনিধি আছেন। এঁদের মধ্যে কেউ পুরনো, আবার কেউ নতুন। তাঁদের অনেকেই কোটি টাকা খরচ করে নির্বাচন করেছেন বলে গুঞ্জন আছে। আবার অনেকের আর্থিক অবস্থাও বেশ ভালো। অনেকে এলাকার প্রভাবশালী ও ধনাঢ্য ব্যক্তি। কিন্তু বিস্ময়ের বিষয় হলো বর্তমান দুঃসময়ে অনেক কাউন্সিলরকেই সেভাবে তৎপর দেখা যাচ্ছে না। ছয়-সাতজন সক্রিয় আছেন। অন্যরা কী করছেন বা আদৌ কিছু করছেন কি না, তা এলাকাবাসী অবহিত নয়।

একাধিক ওয়ার্ডের ভোটাররা বলেন, বিপদে বন্ধুর পরিচয়। কিন্তু অনেক কাউন্সিলরই সেই বন্ধুর ভূমিকা রাখতে পারছেন না। ভোটাররা আরো বলেন, একটি সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের কাছ থেকে যে উদ্যোগ, সক্রিয়তা ও আন্তরিকতা ভোটাররা আশা করেছিলেন, তা পূরণ হচ্ছে না। ভোটাররা বলেন, দেশের অনেক স্থানে জনপ্রতিনিধিরা উদ্যোগী হয়ে নিজেরাই মাইকিং করছেন, বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন, লিফলেট বিতরণ করছেন, জীবাণুনাশক ছিটাচ্ছেন। কিন্তু ময়মনসিংহের ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের কাছ থেকে কোনো সেবাই পাচ্ছে না জনগণ।

জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমীন কালাম বলেন, ‘ওয়ার্ড কাউন্সিলররা কী কাজ করছেন তা তেমনভাবে দৃশ্যমান নয়। হয়তো তাঁরা কাজ করছেন, আমরা জানি না। আবার এমনও হতে পারে, তাঁরা আসলে তেমন কাজ করছেন না বলেই আমাদের চোখে পড়ছে না।’ তিনি আরো বলেন, প্রতিষ্ঠানের বাইরে গিয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলররা তেমন উল্লেখযোগ্য কিছু করছেন বলে তাঁর নজরে আসেনি। একই সঙ্গে তিনি বলেন, সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু যেভাবে কাজ করছেন, তা প্রশংসার দাবি রাখে। মেয়রের কাজে শহরবাসী সন্তুষ্ট। তিনি শহরবাসীর আস্থা অর্জন করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা