kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৪ জুন ২০২০। ১১ শাওয়াল ১৪৪১

ঈশ্বরদী ইপিজেডের কারখানা বন্ধের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৮ মার্চ, ২০২০ ২০:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈশ্বরদী ইপিজেডের কারখানা বন্ধের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

করোনাভাইরাস মুক্ত থাকার জন্য পাবনার ঈশ্বরদী রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (আইইপিজেড) হেয়ার স্টালা কম্পানি-১ এর শ্রমিকরা ছুটির দাবিতে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন। আজ শনিবার দুপুরে মধ্যহ্ন বিরতির পর কম্পানির প্রায় এক হাজার নারী পুরুষ শ্রমিক একযোগে ছুটির দাবিতে এসব কর্মসূচি পালন করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঈশ্বরদী ইপিজেডে চালু থাকা কম্পানিগুলোর শ্রমিকরা অভিযোগ করে জানান, করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মাঝে এখনো উইন্টার ফ্যাশান, তিয়ানী, এমজিএল, হেয়ার স্টালা, নাকানো কম্পানি ইন্টারন্যাশনালে উৎপাদন চালানো হচ্ছে। অন্যদিকে এই ইপিজেডেরই রহিম আফরোজ গ্লোবাল, তোয়া, এবা, রুলিং বিডি, রেঁনেসাসহ বেশ কিছু কম্পানি ইতিমধ্যেই বন্ধ ঘোষণা করে তাদের শ্রমিকদের ছুটি দিয়েছে।

জানা যায়, ইপিজেডের বিভিন্ন কম্পানিতে নাটোর জেলার লালপুর, বড়াইগ্রাম,পাবনা, সাথিয়া, বেড়া, সুগানগর, আটঘরিয়া, কুষ্টিয়া, ভেড়ামারা, মিরপুরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে শ্রমিকরা কাজ করতে আসেন। করোনা ভাইরাসের কারণে রাস্তায় কোন যানবাহন চলাচল করতে দিচ্ছে না প্রশাসন। এক দিকে বিদেশি ও দেশি শ্রমিকদের সঙ্গে গাদাগাদি করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। তারপর রাস্তায় যানবাহন চলতে না দেওয়ায় পায়ে হেঁটে তাদের দূরদূরান্তে যেতে হচ্ছে। চাকরী হারানোর ভয়ে তারা শত কষ্টের মধ্যে আসতে বাধ্য হচ্ছেন। কিন্তু প্রতিদিন এভাবে চলাচল করা কোন মতেই সম্ভব নয়। তারপরও করোনা ভাইরাসের মহামারিতে সরকার দেশব্যাপী লক ডাউন ঘোষণা করলেও কেনো তাদের ছুটি দেওয়া হচ্ছে না। তাই করোনা মহামারি থেকে নিজেদের ও দেশবাসীকে রক্ষা করতে তাঁরা ছুটির দাবিতে আন্দোলন করছেন। শ্রমিকরা জানান, দ্রুত তাদের সকলকে ছুটি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি পালন করা হবে। তাঁরা সরকারের সুদৃষ্টিও কামনা করেন। 

তবে এই ব্যাপারে অনেক চেষ্টা করেও হেয়ার স্টালা কোম্পানির দায়িত্বশীল ব্যক্তির মতামত নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা