kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

করোনাভাইরাস সতর্কতায় নন্দীগ্রামে আঞ্চলিক ভাষায় মাইকিং

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৮ মার্চ, ২০২০ ১৪:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনাভাইরাস সতর্কতায় নন্দীগ্রামে আঞ্চলিক ভাষায় মাইকিং

বগুড়ার নন্দীগ্রামে করোনাভাইরাস বিষয়ে এলাকাবাসীকে সতর্ক করতে আঞ্চলিক ভাষায় মাইকিং করা হচ্ছে। আঞ্চলিক ভাষায় প্রচারিত এ মাইকিং পাড়ায় পাড়ায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

এতে এক ব্যক্তি আঞ্চলিক ভাষায় করোনা ভাইরাস সম্পর্কে এলাকাবাসীকে সতর্ক করে প্রচারণা চালিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ সম্মানিত এলাকাবাসী, শান্তিপ্রিয় দেশবাসী। বিশ্বব্যাপী যে করোনা ভাইরাস দেখা দিচে। এরজন্নে বিশ্ব এখন ভয়ের মদ্ধে আছে। এই করোনা ভাইরাসের কোন ওষুধপাতি নাই। আমেরিকা, চীন, জাপান, ইতালি, লন্ডন, ইংল্যান্ড এই বড় বড় দেশ ঘ্যামে উঠিচ্ছে এর ওষুধ ব্যার করব্যার যায়ে। এই করোনা ভাইরাস বিশ্বের হাজার হাজার ম্যানশেক ম্যারে ফিলিচ্ছে।’

‘এইজন্নে করোনা ভাইরাসের থ্যাকে এখনই সাবধান হওয়া লাগবি। কারণ এর কোন ওষুধপাতি কোন ডাক্তার এখনো ব্যার করবার পারেনি। বিদেশেরথিনি কোন মানুষ এলে পারে তারকরেক ১৪ দিন বাড়িত থ্যাকে ব্যার হওয়া যাবিল লয়। বাড়িত থাকলে বউ-ছোল-পোল কাকুই ছোয়া যাবিল লয়। এরনাম হোম কোয়ারেন্টাইন। বিদেশের থ্যাকে কোনো মানুষ আসলে পারে অবশ্যই এলাকার চেয়ারমিন অথবা কাউন্সিলারক মোবাইল করে জানান লাগবি। দোকানের মালিকেরা দোকানের সামনে পানি আর সাবান আঁকে দিবেন। কাস্টমার আলে পারে প্রথমেই সেই সাবান পানি দিয়্যা হাত কচল্যা কচল্যা ধুয়ে শোধাপাতি কিনবি। টেকা লাড়ার পর সাবান দিয়া সকগুলির হাত ধোয়া লাগবি।’

তিনি বলেন, ‘চায়ের দোকানত বুসে থ্যাকে গপ্প-সপ্প করা যাবিল লয়। ভিড় ভাড়টা যেটি বেশি থাকপি, সেটি যাওয়া যাবিল লয়। মনে রাখেন করোনা ভাইরাসের কোন ওষুধ নাই। মানুসের সাথে হেনসেক করা যাবিল লয়। যতো বেশি মানুসের সাথে মিসপেন ততো বেশি ভাইরাস ছরেপরবি। বাড়ির আশপাশ পয়পরিষ্কার করা লাগবি। ময়মুরাব্বির ক্যায়াল বেশি করে রাখবেন। ছোলপলের স্কুল-কলেজ বন্ধ করে দিচে, অফিস-আদালত বন্ধ হছে বেরানোর যাওয়ার জন্নে লয়। আপনাদের বাড়িত থাকার জন্নে। মনে রাখেন এক জনের শরীলত করোনা ভাইরাস ঢুকলে, তার থেকা বাপ-মাও, ভাই-ভ্যাচতা, বউ-ছোল-পোল বেমারটিক শরীলত এই ভাইরাস সরে পরবি। তাই বাড়িত থেকা দরকার না হলে কেউ ব্যার হবেন না। আল্লাহ’র কাছে বেশি করে দোয়া করেন। হামাকেরেক এই বালা-মসিবতেক থ্যাকে তারাতারি মুক্তি দেয়। হামার কথা সকগুলি মন দিয়ে শুনেন, এই রোগের কোন ওষুধ নাই।’

শনিবার সকাল থেকে পৌরসভার ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ববিতা বেগমের উদ্যোগে প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় এই করোনা ভাইরাস সতর্কতায় আঞ্চলিক ভাষায় প্রচারণা চালানো হয়। এই ব্যতিক্রম প্রচারণা স্থানীয়দের মাঝে কৌতূহলের সৃষ্টি করছে। প্রচার শোনার জন্য মাইকের সামনে অনেকেই ভিড় জমায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা