kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

স্তব্ধ ভূরুঙ্গামারী, বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষ

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৮ মার্চ, ২০২০ ১৩:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্তব্ধ ভূরুঙ্গামারী, বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষ

ভূরুঙ্গামারীতে করোনাভাইরাসের আতঙ্কে গত মঙ্গলবার বিকাল থেকেই স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। ফাঁকা হয়ে গেছে শহর। বন্ধ হয়ে গেছে হাট-বাজার, দোকানপাট, হোটেল-রেস্তোরাঁ, জনসমাগমসহ সকল গণপরিবহন। তবে ওষুধ, মুদি দোকান, কাঁচাবাজারসহ নিত্যপণ্যের দোকানপাট খোলা রাখা হয়েছে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। এরই মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রশাসনকে সহায়তা করতে উপজেলায় টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী। এমন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। দিনমজুর, রিকশাচালক, বাস শ্রমিকসহ দিন এনে দিন খায় এমন মানুষ সংকটে পড়েছে খাদ্যের। 

শনিবার সকাল ৮টায় ভূরুঙ্গামারীর জামতলা মোড়ে গিয়ে দেখা যায় শ্রমিকরা এসেছেন কাজের সন্ধানে। কিন্তু কোনো কাজ পাচ্ছেন না। একাধিক শ্রমিকের সাথে কথা বললে তারা জানান, এখান থেকে প্রতিদিন শতাধিক শ্রমিক বিভিন্ন ক্ষেতে খামারে, নির্মাণ সাইটে ও বাসা-বাড়িতে কাজে যেত। কিন্তু প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না যেতে প্রশাসনের মাইকিং শুনে কেউ বাইরে আসার সাহস পাচ্ছে না। যদিও আমরা কয়েকজন শ্রমিক এসেছি কিন্তু কেউ কোনো কাজ পাইনি।

দিনমজুর বেলাল জানান, আমরা দিনে কাজ করে সন্ধ্যার পর সেই কাজের পারিশ্রমিক দিয়ে বাজার করে পরিবারের খাবার যোগান দিই। গত তিন দিন থেকে কোথাও কোনো কাজ পাচ্ছি না। এখন কি করব সেটা বুঝে উঠতে পারছি না। অটোচালক সুমন বলেন, আমি প্রতিদিন চার শ টাকা জমার শর্তে ভাড়ায় অটো চালাই। গত দুই দিন থেকে অটো নিয়ে বাইরে যেতে পারছি না। রোজগার বন্ধ। আর কিছু দিন এমন চললে না খেয়ে মারা যাব। 

হতদরিদ্রদের সাহায্যের জন্য ত্রাণের ব্যবস্থা করতে জেলা প্রশাসকদের প্রতি সরকারি নির্দেশনা থাকলেও এখনো পর্যন্ত ভূরুঙ্গামারীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে তেমন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহিনুর আলম বলেন, ভূরুঙ্গামারী উপজেলার জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ৪৩০টি প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে। কবে নাগাদ এই বরাদ্দ বণ্টন করা হবে সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরুজুল ইসলাম বলেন, কিছু বরাদ্দ পাওয় গেছে, আজকালের মধ্যেই বিতরণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা