kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

করোনা থেকে রক্ষা পেতে

রাতে চট্টগ্রামে মসজিদে মসজিদে আজান

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৭ মার্চ, ২০২০ ০১:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাতে চট্টগ্রামে মসজিদে মসজিদে আজান

চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় রাত ১০টার পর থেকে আজান দেওয়া শুরু হয়েছে। রাত ১১টা পর্যন্ত থেমে থেমে আজান দেওয়ার কার্যক্রম চলে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে আল্লাহর রহমত কামনা করে এই আজান দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

মসজিদে মসজিদে আজান দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে রাউজান উপজেলার বাসিন্দা মোহাম্মদ আলমগীর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একটি ইসলামী সংগঠনের পক্ষ থেকে মসজিদে রাত ১০টায় আজান দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। সেই অনুসারে আশপাশের মসজিদ থেকে রাত ১০টার পর থেকে আজান দেওয়া শুরু হয়।’

এদিকে একটি ভিডিও বার্তায় আজান দেওয়ার বিষয়টিকে গুজব বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রামের জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসার প্রফেসর মুফতি ওবায়দুল হক নঈমী। তিনি ভিডিও বার্তায় দাবি করেন, আমার নামে কারা গুজব ছড়িয়েছে জানি না। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর বিষয়ে আমি রাতে মসজিদে মসজিদে আজান দেওয়ার কথা কোথাও বলেনি। আমার নামে কেউ এসব কথা বললে সেগুলো গুজব।

রাত পৌনে ১১টায় চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার কেঁওচিয়া গ্রামের মাইজপাড়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম আবুল কালাম আজাদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘কোন সংগঠন মসজিদে আজান দেওয়ার কর্মসূচি দিয়েছে আমি জানি না। তবে এলাকার অন্য মসজিদগুলোতে থেকে আজানের শব্দ শোনে আমিও আজান দিয়েছি।’

এরপর রাত ১১টায় চট্টগ্রাম নগরীর বেশ কয়েকটি মসজিদ থেকে আজানের শব্দ ভেসে আসে। রাত ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত সময়ে চট্টগ্রামের অনেক মসজিদে আজান দেওয়া হয়।

মধ্য রাতে আজানের বিষয়ে কেঁওচিয়া মোজহেরুল হক ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার সুপারিটেডেন্ট আবদুল মালেক বলেন, ‘মধ্যরাতে আজান দেওয়ার কর্মসূচি কারা ঘোষণা করেছে জানি না। তবে এলাকার মসজিদগুলোতে আজান দেওয়া হয়েছে।’ 
তিনি বলেন, ‘পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের জন্য আজান দেওয়ার ধর্মীয় বিধান আছে। এর বাইরে আজানের ফজিলত কী? সেটা আমার কাছে স্পষ্ট নয়।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা