kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ১ ডিসেম্বর ২০২০। ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

করোনা মোকাবেলায় কাজ করছেন শুভসংঘের শম্পা ও মিতা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

২৬ মার্চ, ২০২০ ১৭:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা মোকাবেলায় কাজ করছেন শুভসংঘের শম্পা ও মিতা

করোনাভাইরাস আতঙ্কের মধ্যেও কালের কণ্ঠ শুভসংঘ রাজবাড়ী জেলা শাখার সদস্যরা সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও লিফলেট বিতরণের পরেও বসে নেই শুভসংঘের দুই নারী সদস্য। তারা ভিন্ন ধারার কাজে নিজেদের ব্যস্ত রেখেছেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘ রাজবাড়ী জেলা শাখার সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলার ছোটভাকলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শম্পা প্রামাণিক এবং নারী বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা শহরের শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গুলশান আরা মোস্তফা মিতা।

 
শম্পা প্রমাণিক বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার পাঁচুরিয়ার ছাদেকাবাদ জনকল্যান ট্রাস্ট প্রাঙ্গণে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে প্রত্যন্তগামাঞ্চলের ৪৩ জন নারীকে হাত ধোয়ার প্রশিক্ষণ প্রদান করেন এবং গুলশান আরা মোস্তফা মিতা গত কয়েকদিন ধরে নিজ উদ্যেগে সেলাই মেশিন চালিয়ে মাস্ক তৈরি করছেন। এ পর্যন্ত তিনি তার নিজের অর্থ ব্যয় করে শতাধিক মাস্ক তৈরি করেছেন। যে সব মাস্ক হতদরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে বিতরণ করা হবে। তাদের দুই জনের এই কার্মকান্ডকে সাধুবাদ জানিয়েছেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘ রাজবাড়ী জেলা শাখার সভাপতি সরোয়ার মোর্শেদ খান স্বপন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মন্ডল।
 
এক প্রতিক্রিয়ায় শম্পা প্রমাণিক বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে বিদ্যালয়গুলো ছুটি হয়ে গেছে। বাড়িতে বসে সময় কাটাতে হচ্ছে। যে কারণে গ্রামের নারীদের হাত ধোয়ার প্রশিক্ষণ তিনি দিয়েছেন। এতে ওইসব নারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের করোনাভাইরাস সুরক্ষায় কাজে দেবে।

গুলশান আরা মোস্তফা মিতা বলেন, মানুষের এই সংকটময় অবস্থায় একটু পাশে থাকতেই তিনি নিজে সেলাই মেশিন চালিয়ে মাস্ক তৈরি করছেন। এ পর্যন্ত তিনি শতাধিক মাস্ক তৈরিও করেছেন। ওই সব মাস্ক নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে এলাকার দরিদ্র মানুষদের প্রদান করবেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা