kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

রাঙামাটিতে মানুষকে ঘরে রাখতে প্রশাসনের প্রচেষ্টা অব্যাহত

হোম কোয়ারেন্টিনে থাকাদের বাড়িতে সেনাবাহিনীর উপহার

রাঙামাটি প্রতিনিধি    

২৬ মার্চ, ২০২০ ১৫:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হোম কোয়ারেন্টিনে থাকাদের বাড়িতে সেনাবাহিনীর উপহার

টানা ছুটির প্রথম দিন থেকেই রাঙামাটি পুরোটা ফাঁকা হয়ে এসেছে। বুধবার থেকে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পর বৃহস্পতিবার থেকে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ছুটি শুরু হওয়ায় শহরে তেমন লোকজন নেই বললেই চলে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ রাস্তায় বের হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদেরকে বাসায় ফেরত পাঠাচ্ছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাঙামাটি শহর ঘুরে দেখা যায় গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোতে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সকাল থেকেই বিভিন্ন এলাকায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার তদারকি করছেন। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টি করতে কাজ করে যাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসনসহ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। হাট-বাজার থেকে শুরু সব জায়গায় যাতে একের অধিক মানুষ একসাথে না থাকতে পারে সে বিষয়ে কাজ করছে প্রশাসন।

রাঙামাটিতে হাম কোয়ারেন্টিনে থাকা মানুষদের কাছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফলমূল পৌঁছে দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ১১২ ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে থাকায় তাদের বেশ কষ্ট হচ্ছে। তাই রাঙামাটি রিজিয়ন থেকে তাদেরকে এই শুভেচ্ছা উপহার দেয়া হচ্ছে বলে জানানো হয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে। 

রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসলাম উদ্দিন বলেন, আমরা তবলছড়ি বাজারে অপ্রয়োজনে লোকজন ভিড় করছে কিনা এবং যেসব দোকান বন্ধ রাখার কথা ছিল সেগুলো বন্ধ আছে কিনা এবং সাথে সাথে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার তদারকিও করেছি। 

রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পল্ল হোম দাশ জানিয়েছেন, শহরের নতুন জালিয়া পাড়া এলাকায় ভারত থেকে এসেছেন তিনি হোম কোয়ারেন্টিনে থাকছেন কিনা সেটা দেখতে গিয়েছিলাম এবং আগামী ১৪ দিন কোনভাবেই ঘর থেকে বের না হতে বলা হয়েছে। ওই এলাকায় সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে থাকার পরামর্শও দিয়েছি।

রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ছুফিউল্লাহ জানিয়েছেন, আমরা মানুষকে ঘরে থাকার জন্য বারবার অনুরোধ করছি। যারা প্রয়োজন ছাড়া বের হয়ে আসছেন, তাদের বাসায় ঢুকতে বাধ্য করছি। তিনি সবাইকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করার অনুরোধও করেছেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা