kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

নীরব নিস্তব্ধ জনশূ্ন্য

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি   

২৬ মার্চ, ২০২০ ১৫:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নীরব নিস্তব্ধ জনশূ্ন্য

করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে বাড়িতেই অবস্থান করছে চরফ্যাশন ও মনপুরা দুইটি উপজেলার নতুন ৩টি থানার  ১০ লক্ষাধিক মানুষ। প্রশাসনের কড়া নজরদারিতে চরফ্যাশন শহরসহ গ্রামাঞ্চলের বাজার এবং রাস্তাগুলো জনশূন্য করে দিয়েছেন। চরফ্যাশন পৌর বাজারসহ ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রুহুল আমিনসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা। পাশাপাশি সতর্কতামূলক মনিটরিং করছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো.জয়নাল আবেদিন আখন।

সরকারি নির্দেশনা মেনে চলার জন্য জনগণকে আহব্বান জানিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য,যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব। দফায় দফায় পরিদর্শনে আসছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.রুহুল আমিন ও চরফ্যাশন থানা পুলিশ কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের চরম ঝুঁকির কথা শুননেও বিশেষ করে চরফ্যাশনে এই ধরনের কোন লক্ষণ আজও দেখা যায়নি। চরফ্যাশনের মানুষ মনে করেন আমরা চরফ্যাশনের মানুষ ধর্মভিরু। আল্লাহর হুকুম নবীর তরিকানুযায়ী চলার চেষ্টা করি। পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ি তাই করোনাভাইরাসে আমাদেরক আক্রমণ করতে পারবে না। এমন সাহস নিয়ে মানুষ রাস্তাঘাটে,বাজার বন্দরে জমায়েত হলেও সর্তকতামূলক পুলিশের লাঠিচার্জে বাজার বন্দর বন্ধ করে দিয়ে লকডাউন করা নির্দেশ প্রদান করেন। চরফ্যাশন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আরেফীন এর নের্তৃত্বে সার্বক্ষনিক মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে মাঠে ময়দানে থাকছে। ফলে খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের হতে দেখা যাচ্ছে না।

এলাকার রাস্তাগুলোতে প্রশাসন ও পুলিশের রয়েছে কড়া নজরদারি। তৃতীয় দিনের মত বন্ধ রয়েছে অধিকাংশ দোকান। করোনাআতঙ্কে আশপাশের মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না বা বের হতে দিচ্ছে না পুলিশ। সম্প্রতি চরফ্যাশন উপজেলায় ২২৭ প্রবাসী সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশ থেকে প্রবেশ করে। তিন দিন ধরে উপজেলার সকল বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য  আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেন, ভাইরাসটি থেকে মুক্ত থাকতে জনগণকে সতর্কতা মেনে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী চলার জন্য অনুরোধ করছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা