kalerkantho

বুধবার  । ১৮ চৈত্র ১৪২৬। ১ এপ্রিল ২০২০। ৬ শাবান ১৪৪১

হাসপাতাল ফাঁকা ফাঁকা

ফিরোজ গাজী, যশোর থেকে   

২৬ মার্চ, ২০২০ ১৩:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাসপাতাল ফাঁকা ফাঁকা

করোনার প্রভাবে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর সংখ্যা কমে গেছে।  বহির্বিভাগ, জরুরি বিভাগ, সার্জারি, মেডিসিন, অর্থোপেডিকসসহ সব ওয়ার্ডই এখন ফাঁকা ফাঁকা। ১৫ দিন আগেও যেখানে বেডে জায়গা না পেয়ে অতিরিক্ত রোগীরা চিকিৎসা নিতেন মেঝেতে। বহির্বিভাগে চিকিৎসকরা হিমশিম খেতেন রোগীর সেবায়। গত বুধবার হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সেসব ওয়ার্ডে এখন অসংখ্য বেড রোগীশূন্য এবং বহির্বিভাগেও নেই রোগীর ভিড়। বিষয়টিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছেন। 

হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার আরিফ আহমেদ জানান, হাসপাতালে সার্জারি, মেডিসিন, অর্থপেডিকসহ ১২টি ওয়ার্ড রয়েছে। এসব ওয়ার্ডে ১৫ দিন আগে গড়ে চিকিৎসা নিত ৫৫০ থেকে ৬০০ জন। সেখানে গত মঙ্গলবার ভর্তি ছিল ২৬৩ জন। বহির্বিভাগে গত ১৫ দিন আগে গড়ে ২২ শ থেকে ২৩ শ রোগী চিকিৎসা নিতেন। সেখানে গত মঙ্গলবার চিকিৎসার জন্য টিকিট নিয়েছেন  ৫২৭ জন। 

রোগী এত কমে যাওয়ার বিষয়টিকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছেন আরিফ আহম্মেদ। তিনি বলেন, এটি সম্ভব হচ্ছে মানুষের মধ্যে জনসচেতনতা এবং সঠিক দিক নির্দেশনার কারণে।

হাসপাতালের বহির্বিভাগের টিকিট কাউন্টারে গত বুধবার দুপুর ১২টায় গিয়ে দেখা যায় কাউন্টার প্রায় ফাঁকা। মাত্র দুজন টিকিট কিনছেন। সেখানে গিয়ে জানা যায়, টিকিট বিক্রি হয়েছে মাত্র ৩৬৬টি।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় বলেন, আমরা চাইছি- সাধারণ রোগীরা টেলিচিকিৎসা গ্রহণ করুক। যে রোগীর তিন মাস পর অপারেশন করলে চলবে, তাকে অপেক্ষা করতে বলেছি। এখন প্রায়োরিটি দিচ্ছি করোনা আর ডেঙ্গু চিকিৎসায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা