kalerkantho

সোমবার । ২৩ চৈত্র ১৪২৬। ৬ এপ্রিল ২০২০। ১১ শাবান ১৪৪১

জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে, দুই শিক্ষককে শোকজ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে, দুই শিক্ষককে শোকজ

জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের অভিযোগে বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি কেও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেওয়া হয়েছে। নোটিশপ্রাপ্তরা হলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক ও সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম। 

বৃহস্পতিবার সকালের দিকে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলম সাত কার্যদিবসের মধ্যে জবাব চেয়ে তাদের এ নোটিশ দেন। শহীদ বেদিতে জুতা পায়ে উঠার বিষয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি কালের কণ্ঠে প্রতিবেদন প্রকাশের পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ২১ ফেব্রুয়ারি সকালের দিকে অত্র বিদ্যালয়ে শহীদ বেদিতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে ওঠেন এবং ছবি তোলেন। বেদিতে জুতা পায়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকের ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে গণমাধ্যমকর্মীদের নজরে আসে।

উপজেলার গোসাইবাড়ি কেও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক বুলবুল বলেন, শহীদ মিনার অবমাননার বিষয়ে কারণ দর্শনোর নোটিশ পেয়েছি। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট সন্তোষজনক জবাব দাখিল করা হবে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজিয়া সুলতানা বলেন, জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে উঠে শহীদ মিনারের অবমাননা করার বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে পত্র দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলম বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনায় দুই শিক্ষককে সাত কার্যদিবস সময় দিয়ে শোকজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তাদের জবাব পাওয়ার পর প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা