kalerkantho

সোমবার  । ১৬ চৈত্র ১৪২৬। ৩০ মার্চ ২০২০। ৪ শাবান ১৪৪১

কক্সবাজারে চতুর্থ জাতীয় যুব সম্মেলন শুরু

তরুণ জনগোষ্ঠীই সমাজের মেরুদণ্ড : প্রতিমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৪৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তরুণ জনগোষ্ঠীই সমাজের মেরুদণ্ড : প্রতিমন্ত্রী

‘জাতীয় উন্নয়নের জন্য তরুণদের ক্ষমতায়ন’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাগো ফাউন্ডেশনের আয়োজনে গতকাল বুধবার থেকে কক্সবাজারে শুরু হয়েছে চতুর্থ জাতীয় যুব সম্মেলন ২০২০। কক্সবাজার সাগর পাড়ের একটি বিলাস বহুল হোটেলে চার দিনব্যাপী এই সম্মেলনটি আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

দেশে তরুণদের বিভিন্ন ক্ষেত্রে পারদর্শিতা অর্জন, দীর্ঘ মেয়াদে বিকাশ ও বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে ভূমিকা রাখতে প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জনের গুরুত্বারোপ করা হচ্ছে জাতীয় যুব সম্মেলনে। সেই সঙ্গে এই সম্মেলনের মাধ্যমেই তরুণরা ভিন্ন পরিবেশে নিজেদের মানিয়ে নেওয়ার প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো সম্পর্কেও ধারণা লাভ করতে পারবে।  

গতকাল সন্ধ্যায় যুব সম্মেলনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘তারুণ্য হচ্ছে প্রাণশক্তিতে ভরপুর। আর বাংলাদেশের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ জনসংখ্যাই তরুণ। এ কারণে আমাদের গুরুত্ব দিতে হবে তরুণ সমাজের উন্নয়নে।’

তিনি বলেন, এসডিজি অর্জনে সরকার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। তরুণদের ক্ষমতায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশের এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য জাতীয় যুব সম্মেলন একটি শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আয়োজকরা জানান, বাংলাদেশের তরুণ স্বেচ্ছাসেবীরা সম্মেলনে তাদের ভাবনা, দৃষ্টিভঙ্গি, পরিকল্পনা এবং মানুষের উন্নয়নে তাদের কর্মকাণ্ডগুলো সবার সামনে তুলে ধরবে। অন্যদিকে, সম্মেলনে আগত অতিথিরা তাদের অভিজ্ঞতা, আইডিয়া, ভবিষ্যতে দেশকে যারা নেতৃত্ব দেবেন সেসব তরুণ সমাজের কাছে তাদের প্রত্যাশার বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবেন। সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী তরুণ নাগরিকরা সম্মেলন শেষে নিজের জেলায় ফিরে গিয়ে নিজেদের কমিউনিটির বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে যুক্ত হবে এবং এসডিজি'র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য সামনের দিনগুলোতে কাজ করবে।

এ বছর সম্মেলনটিতে সারাদেশ থেকে আগত ৬০০ জন তরুণ  অংশ নিচ্ছেন। সম্মেলনে ৩০টিরও বেশি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দিনের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অনুষ্ঠানের সূচনা ও মিশনের সুযোগ নিয়ে আলোচনা করা হয়। সম্মেলনের দ্বিতীয় ও পরের দিনগুলো জ্ঞান বিনিময়, দল গঠনের প্রয়োজনীয়তা ও তথ্যবহুল কর্মশালা দিয়ে সাজানো হয়েছে।  

চার দিনব্যাপী এই সম্মেলনে সুপরিচিত ব্যবসায়ী নেতা ও প্রতিনিধিরা বিভিন্ন কর্মশালায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ের ওপর তাদের মতামত দেবেন। অনুষ্ঠানে জাগো ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক করভি রাকসান্দ তার বক্তব্যে বলেন, তরুণ জনগোষ্ঠীই সমাজের মেরুদণ্ড। এই  সম্মেলনে বিভিন্ন ক্ষেত্রের ৭৫ জনেরও বেশি বক্তা এবং একাধিক বিষয়ে দক্ষ ব্যক্তির সমন্বয়ে প্যানেল থাকবে।

এই সম্মেলনে বিভিন্ন ক্ষেত্রের ৭৫ জনেরও বেশি বক্তা এবং একাধিক বিষয়ে দক্ষ ব্যক্তির সমন্বয়ে প্যানেল থাকবে। এদের মধ্যে রয়েছেন বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ শারহান নাসের তন্ময়, কন্টেন্ট নির্মাতা ও ভিডিও ব্লগার ডিয়ার অ্যালেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের ডেপুটি হাই কমিশনার কানবার হোসেন বর, বিজিএমই’র প্রেসিডেন্ট রুবানা হক, ব্র্যাকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আসিফ সালেহ, আইপিডিসি ফাইন্যান্সের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোমিনুল ইসলাম, গ্রিন ডেল্টার ম্যানেজিং ডিরেক্টর ফারজানা চৌধুরী, নভোএয়ারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মফিজুর রহমান, অ্যাপেক্সের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ নাসিম মনজুর, আইডিএলসি ভেঞ্চার ক্যাপিটালের পার্টনার সামাদ মিরালী, টেন মিনিটস স্কুলের সিইও আয়মান সাদিক, ডন সামদানি ফ্যাসিলিটেশনের চিফ ইন্সপিরেশনাল অফিসার গোলাম সামদানী ডন, ইউএন ওমেনের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ শোকো ইশিকাওয়া, ওয়াটারঅ্যাইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান, ইউএনডিপি বাংলাদেশের রেসিডেন্ট রিপ্রেসেন্টেটিভ সুদীপ্ত মুখার্জী এবং ইউএনডিপি বাংলাদেশের হেড অব কমিউনিকেশনস মো. আব্দুল কাইয়ুম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা