kalerkantho

সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ার, আওয়ামী লীগ নেতাসহ নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ার, আওয়ামী লীগ নেতাসহ নিহত ২

বান্দরবান সদর উপজেলার জামছড়ি বাজারে সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি বাচনু মারমা (৫৫) নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থলে বসে থাকা আরো এক ব্যক্তির হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। এ হামলায় আহত হয়েছেন আরো ৫ জন।

আহতরা হ‌চ্ছেন, সা‌বেক মেম্বর উ চ থোয়াই মারমা (৬৫), যুবলীগ নেতা মং ক্য চিং মারমা (২৫), যুবলী‌গ নেতা হ্লা মং চিং মারমা (৩০), ক্য সা মং (৪৫) ও আদ সে মারমা (২৬)।

পুলিশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলেও কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হচ্ছে না। তিন বছর আগে একই গ্রামে হামলা চালিয়ে সন্ত্রাসীরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মংপু মারমাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এখনো তার কোনো সন্ধান মিলেনি।

বান্দরবান সদর থানার ওসি সহিদুল ইসলাম জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার পর রাজবিলা ইউনিয়নের জামছড়ি বাজারে এ ঘটনা ঘটে। তিনি জানান, এ ঘটনায় নিহত ও আহতদের বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। এলাকায় সেনাবাহিনী ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয় একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ১৫ সদস্যের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল বাজারের পেছনের খাল থেকে উঠে আসে। এদের মধ্য থেকে ৯ জন দোকানের আশপাশে পজিশন নিয়ে দাঁড়ায়। একজন অস্ত্র উঁচিয়ে ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি বাচনু মারমাকে লক্ষ্য করে ব্রাশফায়ার করলে তিনি ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন। এরপর আরো কয়েক রাউন্ড ব্রাশফায়ার করতে করতে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এতে দোকানে থাকা আরো ৫ জন আহত হয়েছে।

এ সময় দোকানে বসে থাকা বা চ খয় (৬৩) ঘটনার আকস্মিকতায় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তাকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা. অং সুই প্রু মারমা জানান, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তার মৃত্যু ঘটেছে।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ বান্দরবান শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ও বান্দরবান পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী বলেছেন, এ ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। তিনি সকলকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা