kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

একুশে ফেব্রুয়ারিকে ঘিরে চাঁদপুর এখন ফুলের হাট

চাঁদপুর প্রতিনিধি    

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একুশে ফেব্রুয়ারিকে ঘিরে চাঁদপুর এখন ফুলের হাট

ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর যেন এখন ফুলের হাট! শুধুমাত্র মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে এই ফুলের হাট বসেছে জেলা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এবারেই চাঁদপুর শহরসহ জেলার বিভিন্নস্থানে শতাধিক ভ্রাম্যমাণ ফুলের পসরা সাজিয়ে বসেছেন অনেকেই। ব্যবসায়ীরা জানান, একদিকে মুজিববর্ষ অন্যদিকে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে প্রতিষ্ঠানের বাইরেও নানা বয়সী মানুষ ও পেশার লোকজন হরেকরকম ফুল নিয়ে এখনই ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন।

চাঁদপুর শহরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়ক ও পাশের হাসান আলী স্কুল মাঠের আশপাশে অন্তত ২০টি ফুলের দোকান রয়েছে। এরমধ্যে ১০টি দোকানই ভ্রাম্যমাণ। শুধুমাত্র বিশেষ দিবসকে কেন্দ্র করে এসব দোকান গড়ে উঠেছে। এই অবস্থা জেলার ফরিদগঞ্জ, হাইমচর, মতলব উত্তর ও দক্ষিণ, হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি এবং কচুয়া উপজেলায়।

ফুল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজধানীর শাহবাগ ছাড়াও দেশের বিভিন্ন পাইকারি বাজার থেকে গত দুদিন আগে থেকেই তারা রজনীগন্ধা, গোলাপ, গেঁন্দা, গ্লাডিওলাক্সসহ আরো অনেক জাতের ফুল সংগ্রহ করেছেন।

নাম প্রকার না করার শর্তে একজন ফুল ব্যবসায়ী জানান, এবারে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে চাঁদপুরে প্রায় ৩০ লাখ টাকার ফুল বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

চাঁদপুরের বিশিষ্ট সংগঠক, কালের কণ্ঠ-শুভসংঘ, চাঁদপুর শাখার সভাপতি লায়ন মাহমুদ হাসান খান জানান, শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা প্রকাশের সবচেয়ে বড় মাধ্যম হচ্ছে ফুল। সুতরাং অন্য দিবসের চেয়ে মায়ের ভাষা রক্ষার যে আন্দোলন অর্থাৎ মহান একুশে ফেব্রুয়ারিকে চির জাগ্রত করে রাখার জন্যই এই ফুল দিয়ে মানুষ তার আবেগ প্রকাশ করছে। 

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে শহরে বেশ কয়েকটি ফুলের দোকান ঘুরে দেখা গেছে, রঙবেরঙের ফুলের মালা, ফুলের ডালা, ফুলের তোড়া এবং ফুলের ঝুরি শত শত ক্রেতা দরদাম না করেই ক্রয় করছেন। তাদের সবাই একই লক্ষ্য মহান একুশের প্রভাতে এই ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা জানাবেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা