kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

নোবিপ্রবিতে ধ্রুপদের আয়োজনে সংগীত সন্ধ্যা

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোবিপ্রবিতে ধ্রুপদের আয়োজনে সংগীত সন্ধ্যা

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মিউজিক ক্লাব 'ধ্রুপদ'-এর আয়োজনে (নোবিপ্রবি) এক মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যা (শূন্যতার শোকসভা পর্ব-২) অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত এ সংগীত সন্ধ্যায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ধ্রুপদ এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. দিদার-উল-আলম।

এ সময় অন্যান্যের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. ফারুক উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও প্রক্টর অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক স্পিকার আব্দুল মালেক উকিল হলের প্রভোস্ট ড. ফিরোজ আহমেদ এবং ধ্রুপদের উপদেষ্টা কৌশিক চন্দ্র হালদার, ওমর ফারুক ও তন্ময় দে অপুসহ অনেকে।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আমার সন্তানের মতো। তাদের হাত ধরেই ধ্রুপদ নামক সাংস্কৃতিক সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ধ্রুপদ আয়োজিত শূন্যতার শোকসভায় এসে আমার খুব ভালো লেগেছে। এই ক্যাম্পাসকে একটি পরিপূর্ণ ক্যাম্পাস এর মতো মনে হচ্ছে এখন।

আমি নিজেও ক্যাম্পাস জীবনে বিভিন্ন খেলাধুলার ও বিভিন্ন  সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলাম। এখানে উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পরে তেমন কোন সংগঠন ছিল না, কোন উৎসব ছিল না। কিন্তু সংস্কৃতিমনা তরুণ শিক্ষার্থীদের হাত ধরে ধ্রুপদ যে কাজটি করে যাচ্ছে তা আমার খুবই ভালো লাগছে। আশা করি ধ্রুপদ সামনে আরো ভালো করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. ফারুক উদ্দিন বলেন, ধ্রুপের এমন উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক চর্চার জন্য একটি মুক্তমঞ্চ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আশা করি সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নোবিপ্রবি আরো এগিয়ে যাবে।

মনোজ্ঞ এ সংগীত সন্ধ্যার পাশাপাশি ছিল ক্যান্সারে আক্রান্ত একজন মা ও ক্যান্সারে আক্রান্ত নোবিপ্রবির এক শিক্ষার্থীর জন্য মানবতার ডাক।

সংগীত আসরে গিটার, কাহন এ গান করেছেন ধ্রুপদ, দ্য পাপেটস্ ও সাইলেন্ট স্টর্ম মিউজিক টিম। সংগীতপ্রেমীদের উপস্থিতিতে মুখরিত ছিল কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ প্রাঙ্গণ।

সংগীত আসরটি সবার জন্য ছিল সবার জন্য উন্মুক্ত। উন্মুক্ত এ আসরে ক্যান্সারে আক্রান্ত একজন মা ও ক্যান্সারে আক্রান্ত নোবিপ্রবির এক শিক্ষার্থী বাঁচানোর জন্য সাহায্যও করেছেন অনেকে। আসরে ধ্রুপদের সকল সদস্য ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের সংগীতপ্রেমী শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা