kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

বীরবেশে ফিরলেন রাকিবুল, ফুলে ফুলে ছেয়ে গেল রাস্তা

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বীরবেশে ফিরলেন রাকিবুল, ফুলে ফুলে ছেয়ে গেল রাস্তা

গত ঈদুল আজহার পর বাড়ি থেকে ঢাকা যাবার সময় রাকিবুল হাসান বাড়ির সকলের কাছ থেকে বিদায় নেন। দুর্গম পথ পায়ে হেঁটে রূপসী বাজার পৌঁছলে সাথে ছিলেন ফুফা কামাল হোসেনসহ কয়েকজন বন্ধুবান্ধব। এলাকার মানুষ জানতো তিনি পরিবারের সাথে ঢাকায় বসবাস করেন। ক্রিকেট খেলে আর পড়ালেখা নিয়ে ব্যস্ত। আইসিসি অনূর্ধ্ব বিশ্বকাপে রাকিবুলের ক্রিকেট নৈপূণ্য সারা দেশের কোটি কোটি ভক্তের নজরে পড়ে। তাই রাকিবুল হাসানকে নিয়ে গর্ব করে এলাকাবাসী

আজ মঙ্গলবার দুপুরে নিজ এলাকা ফুলপুরে যখন ফিরলেন রাকিবুল হাসানকে ঘিরে তখন উৎসুক মানুষের ভিড়। সকলের মুখে হাসি, আনন্দ। রাস্তার পাশে ফুল নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে হাজারো মানুষ। বিশ্বকাপ ক্রিকেট বিজয়ী রাকিবুল হাসানকে বিপুল সংবর্ধনা দিয়েছে এলাকাবাসী। রাকিবুল হাসানের প্রতি বুকভরা ভালোবাসা দেখে আবেগ প্লাবিত হন বাবা শহিদুল ইসলাম।

ঢাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে রাকিবুল হাসান গাড়িতে করে ফুলপুর পৌঁছান। এর আগে ময়মনসিংহ থেকে তাঁকে বিশাল মোটর বহর করে ফুলপুর উপজেলা প্রশাসনে নিয়ে আসেন এলাকার লোকজন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলাম ফুলের মালা দিয়ে তাঁকে বরণ করে নেন। উপজেলা কার্যালয়ের প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছুটে আসেন ফুলের মালা নিয়ে।

উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল, পৌর মেয়র আমিনুল হকসহ প্রমুখ। এ সময় প্রশাসন ভবনে চলে আনন্দের বন্যা। এরপর সেখান থেকে তাঁকে জন্মভিটা রূপসী ইউনিয়নের উত্তরবাশাটি কুড়িপাড়া গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। নিজ বাড়িতে যাবার পথে রাস্তায় রাস্তায় সারি সারি তোড়ন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সুশীল সমাজের লোকজন, সাধারণ জনতা তাঁকে করোতালিসহ ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন।

মিষ্টি বিতরণ, বুকভরা ভালোবাসা, ক্রিকেট নিয়ে বরণ্য শিল্পিদের গানে গানে মুখরিত হয় ফুলপুরের রাস্তা। বাজার, রাস্তাঘাট, চায়ের দোকানে রাকিবুল হাসানকে ঘিরে চলে নানা আলোচনা। নিজ এলাকায় উত্তর বাশাটি কুড়িপাড়া মাদরাসায় সংবর্ধনা মঞ্চে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে বিশাল গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়।

বিশ্বজয়ী রাকিবুল হাসানকে নতুন রূপে দেখার জন্য জমায়েত হয় এলাকার হাজার হাজার মানুষ। প্রিন্ট ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরাও উপস্থিত হন সেখানে। সংবর্ধনা শেষে নিজ বাড়ির সামনে গেট থেকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন মা রোমেলা খাতুন ও বাবা শহিদুল ইসলাম।

এ সময় ক্রিকেটার রাকিবুল হাসান কালের কণ্ঠকে জানান, ফুলপুরের মানুষ আমাকে যে সন্মান করল তাদের ভালোবাসায় আমি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি খেলার মাধ্যমেই দেশের জন্য কিছু করতে চাই। রাকিবুল হাসানের মা ও বাবা ছেলের জন্য দোয়া চান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা