kalerkantho

সোমবার । ৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১১:১৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

র‌্যাগিংয়ের দায়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। দণ্ডপ্রাপ্তদের এক ছাত্রকে তিন বছর ও দুই ছাত্রকে দুই বছর এবং দুই ছাত্রীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৭তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া আরেক ছাত্রীকে একই অপরাধে শোকজ করা হয়েছে। একইসঙ্গে র‌্যাগিং নিষিদ্ধ করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. মো. হুমায়ুন কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রেজিস্ট্রার জানান, র‍্যাগিংয়ের দায়ে স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জাকির হোসেনকে তিন বছর, একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তানভীরুল ইসলাম ও ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসানকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ইমরানকে র‌্যাগিং করার দায়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

এছাড়া থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের প্রথম  বর্ষের ছাত্রী ফারহানা আম্বেরীন লিওনাকে র‌্যাগিং করার অভিযোগে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী তোয়াবা নুসরাত মীম ও শায়রা তাসনিম আনিকাকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। ‌আর অভিভাবকসহ মুচলেকা দেওয়ার শর্তে সতর্ক করে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে চারুকলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী মৌমিতা পারভীনকে।

এদিকে, দুই শিক্ষার্থী র‌্যাগিংয়ের শিকার হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি বিভাগে র‌্যাগিং নিষিদ্ধের জরুরি সতর্কতার নোটিশ জারি করা হয়েছে। র‌্যাগিং করলেই বহিষ্কার। পরিচয় পর্বের নামে নবীন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যে কোনো ধরনের অশোভন আচরণ ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে জড়িত থাকলেই প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ রয়েছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যান্টি র‌্যাগিং ক্যাম্পেইন চলছে।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশের একটি ছাত্রীবাসে থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ফারহানা আম্বেরীন লিওনাকে ম্যানার শেখানোর নামে মাত্রাতিরিক্ত র‌্যাগিং করা হয়। প্রচণ্ড মানসিক চাপে মাথা ঘুরে পড়ে যান তিনি। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে প্রথমে ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

এছাড়া র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়ে অজ্ঞান হয়ে যান কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ইমরানকেও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইমরান বর্তমানে ঢাকার একটি মানসিক চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসা নিচ্ছেন। দুই শিক্ষার্থীকে মাত্রাতিরিক্ত র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় রবিবার ( ৯ ফেব্রুয়ারি ) বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিং নিষিদ্ধকরণ ও নবীন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে র‌্যাগিংয়ের নামে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থী ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান ব্যানারে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করেছিলেন। পরে রবিবার রাতেই অ্যান্টি র‌্যাগিং কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগে তিন ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা