kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

চাটমোহরে কোরআন শিক্ষায় আগ্রহ বাড়ছে বয়স্কদের

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১২:৫৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চাটমোহরে কোরআন শিক্ষায় আগ্রহ বাড়ছে বয়স্কদের

পাবনার চাটমোহর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের নরসুন্দর আব্দুল কাদের (৪০)। প্রতিদিন কাজ শেষে রাতে বাড়ি ফেরার পথে গ্রামের এতিমখানা ও হাফেজিয়া মাদরাসায় শিশুদের মধুর কণ্ঠে কোরআন তেলাওয়াত শুনে বিমোহিত হন। তারও বুকের গহীনে ইচ্ছা জাগে কোরআন তেলাওয়াত করতে। কিন্তু এই বয়সে কিভাবে শিখবেন কোরআন তেলাওয়াত। মথুরাপুর গ্রামের দিনমজুর মহসীন আলী (৩৮) জীবনে কখনও আরবি পড়া শেখেননি। অন্যদের নামাজ পড়া দেখে উৎসাহিত হন নিজেও নামাজ পড়বেন। কিন্তু জানেন না সুরা-কিরাত বা নামাজের নিয়ম-কানুন। এই বয়সে কোরআন শিখতে লোকলজ্জার ভয় ঘিরে ধরে তাকে।

তবে সব লজ্জা আর ভয় দূরে ঠেলে নিজেদের ধৈর্য্য আর প্রবল ইচ্ছাশক্তিকে পুঁজি করে কোরআন তেলাওয়াত শিখেছেন কাদের ও মহসীন। তারা এখন শুদ্ধ উচ্চারণে কোরআন তেলাওয়াত ও নামাজ আদায় করতে পারেন। মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে বয়স্কদের কোরআন শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিয়ে মাত্র চার মাসে তারা আরবি পড়া শিখে কোরআন হাতে নিয়েছেন। আর কোরআন পড়া শিখতে পেরে খুবই উচ্ছ্বসিত তারা।

শুধু কাদের কিংবা মহসীনই নয়, তাদের মতো অনেকেই কোরআন তেলাওয়াত শিখে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এর মাধ্যমে দিনদিন বয়স্ক কোরআন শিক্ষা কার্যক্রম জনপ্রিয় হচ্ছে চাটমোহরের বিভিন্ন এলাকায়। এতে আগ্রহও বাড়ছে বয়স্কদের।

গত শুক্রবার এশার নামাজের পর মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদে আয়োজন করা হয় বয়স্কদের কোরআন হাতে দেয়া অনুষ্ঠানের। সেখানে ৩৪ জন বয়স্ক মানুষকে কোরআন হাতে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকতেখারুল ইসলাম, চাটমোহর থানার ওসি সেখ নাসীর উদ্দিন, মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদের সভাপতি দেওয়ান সাহাবুর রহমান চন্দন, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আনিছুর রহমান। 

মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও হোগলবাড়িয়া সিনিয়র মাদরাসার প্রভাষক হাফেজ মাওলানা মো. সাব্বির আহমদ জানান, অক্টোবর মাস থেকে রমজান পর্যন্ত প্রতিদিন মসজিদে এশার নামাজের পর বয়স্ক মানুষদের কোরআন শেখান তিনি। এবার চতুর্থ কোর্চে ৩৪ জনকে কোরআন হাতে দেওয়া হলো। আসলে বয়স কোনো বিষয় নয়, ইচ্ছাশক্তিই আসল। 

মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদের সভাপতি সাহাবুর রহমান চন্দন বলেন, গত চার বছর ধরে তারা এই উদ্যোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকার বয়স্ক মানুষদের আগ্রহ আছে কোরআন শেখার। তাই তারা চেষ্টা করে যাচ্ছেন কোরআন শেখানোর উদ্যোগ ধরে রাখতে।

চাটমোহর থানার ওসি সেখ নাসীর উদ্দিন বলেন, বয়স হলে মানুষের দৃষ্টি ও স্মৃতিশক্তি কমে যায়। কোনো কিছু ধৈর্য্য ধরে শেখার আগ্রহ থাকে না। আবার বেশি বয়সে শিখতে গিয়ে অনেকে লজ্জায় পড়ে যান। সবকিছু ছাপিয়ে মথুরাপুর বাজার জামে মসজিদ যে উদ্যোগ নিয়েছে তা সত্যি প্রশংসনীয়। এমন উদ্যোগ অন্যান্য মসজিদেও ছড়িয়ে দেওয়া দরকার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা