kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

জেল থেকে বেরিয়ে ফের মাদক ব্যবসায়!

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জেল থেকে বেরিয়ে ফের মাদক ব্যবসায়!

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে জেলহাজতে কারাবরণ করে জামিনে বের হয়ে এসে ফের মাদক ব্যবসায় চালিয়ে যাচ্ছে একটি পরিবার। তাদের ওই পরিবারের মাদক ছোবলে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের পথে ধাবিত হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকার সচেতন মহল।

অভিযুক্ত পরিবারের মাদকের ছোবল থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষা করতে গত রবিবার মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার বরাবরে এলাকাবাসীর পক্ষে একটি লিখিত আবেদন করেছেন মর্তুজ আলী মর্তুজা নামের স্থানীয় এক বাসিন্দা। যার অনুলিপি দেওয়া হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল), জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর মৌলভীবাজার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুড়ী ও অফিসার ইনচার্জ জুড়ী থানা।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, জুড়ী উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা মাদক সম্রাট জালাল মিয়া (২৮) দীর্ঘদিন থেকে তাঁর নিজ বসত বাড়িতে ইয়াবা, গাঁজা ও মদ বিক্রি করে আসছেন। তাঁর বিরুদ্ধে এলাকার কেউ প্রতিবাদ করলে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার হুমকিও প্রদান করা হয়।

এ ঘটনায় মাদক সম্রাট জালাল মিয়া (২৮) ও তাঁর পিতা আব্দুল করিম লকুছ মিয়া (৫৫) কে পুলিশ গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠায়। এরপর আদালতের মাধ্যমে তাঁরা জামিনে বেরিয়ে এসে আবারো এলাকার প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় অবাধে মাদক চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। ওই পরিবারের বিরুদ্ধে জুড়ী থানায় ২-৩টি মাদক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। 

গত বছরের ২ জুন জায়ফরনগর ইউনিয়ন আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা ও ২৪ ডিসেম্বর উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ওই পরিবারের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার বিষয়ে পশ্চিম ভবানীপুর এলাকায় মাদকের ছড়াছড়ি নিয়ে আলোচনা হয় এবং এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। 

অভিযোগের বিষয়ে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার সত্যতা নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, ওই পরিবার এলাকায় খুবই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। অভিযোগের কাগজ পুলিশ সুপার মহোদয়ের কাছ থেকে পেয়েছি। ওসি তদন্তকে দিয়ে একটি টিম গঠন করে দিয়েছি, অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। মাদকের বিষয়ে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা